×
ভাইরাল

‘কিনে দে রেশমী চুড়ি’, জনপ্রিয় বাংলা গানে শাড়ি পরে অসাধারন নাচ খুদে কন্যার, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

অসাধারণ অঙ্গিভঙ্গিমায় দুর্দান্ত নাচ নেচে সকলকে তাক লাগালো পুচকে দুই খুদে। সম্প্রতি সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হতে দেখা গেল দুই খুদের অসাধারণ নাচ এবং অভিনয়। আশা ভোঁসলের বিখ্যাত জনপ্রিয় বাংলা গান ‘কিনে দে রেশমি চুড়ি’তে (Kine De Reshmi Churi) তারা দুজন করল নাচ। আপনাদের জন্য রইলো ভিডিওটি। দেখুন কেমন ভাবে সকলের মন জয় করলো তারা।

বিজ্ঞাপন

বয়স কম হলেও তাদের নৃত্যদক্ষতা এবং অভিনয় যে কোনো বড় শিল্পীদের থেকে কোনো অংশে কম নয়।  সেটা তাদের নাচের ভিডিওটি দেখলেই বোঝা যাচ্ছে। গানের সমস্ত কথার সাথে তাল রেখে খুব সুন্দরভাবে নৃত্য পরিবেশনা করেছে দুই খুদে। দুর্দান্ত কোরিওগ্রাফির সাথে দারুন সাজ সমস্ত ভিডিওটিকে বেশ মুগ্ধকর করে তুলেছে দর্শকদের কাছে। দুই যেকোন অভিনেতা অভিনেত্রীর থেকে কোন অংশে কম নয়।

‘কিনে দে রেশমি চুড়ি’ আমরা অনেকেই নাচ করতে দেখতে পাই সোশ্যাল মিডিয়ায়। সম্প্রতি এবারে এই ছোট্ট কন্যার নাচ উঠে এলো এই গানের সাথে। ভিডিও শুরু হতে দেখা গেল ছোট্ট ছেলে ছোট্ট মেয়েকে। তাদের বয়স হয়তো খুব জোর ৩ থেকে ৪ বছর হবে হয়তো সেটাও হবে না। আর এই বয়সেই দেখুন কি সুন্দর নাচ আর অভিনয় করছে গানের সাথে। প্রথমে গানের লাইন অনুযায়ী বাচ্চা ছেলেটি এসে বলছে কিগো মেলা যাবে নাকি? তারপরেই শুরু হয় বাচ্চা মেয়েটির নাচ। একদম পাকা বুড়ি দের মতন মুখে গান করতে করতে একটু করে নাচ করে সে। হয়তো তেমন একটা নাচ সে করেনি কিন্তু তার মুখের হাসি দেখলে আপনার মন ভরে যাবে।

পরনে লাল রঙের একটি শাড়ি পড়ে এত অসাধারণ ভাবে অঙ্গভঙ্গিমা করে নাচ করেছে সে যা এক কথায় অনবদ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে সকল মানুষের চোখে। কখন ফাঁকা ছাদে আবার কখনো বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে মুখ চোখ মেরে নাচ করেছে সে। আবার দেখা যায় নাচ করতে করতে খানিকক্ষণ খেলাও করে নিচ্ছে সে। এসব মিষ্টি সরলতা শিশুদের নাচ গান দেখলেই আমাদের মন ছুঁয়ে যায়। আসলে প্রতিটি শিশুই হয় সরল তাদের সবকিছুই আমাদের মনে ধরে। দেখা গেছে মুখে গানও করছে সে আবার একটু করে নাচ করছে আবার একটু করে হেসে দিচ্ছে। সম্প্রতি এই ভিডিওটি ভাইরাল হয়েছে ইউটিউবের একটি ‘DEEPTI VIDEOS’ নামের চ্যানেল থেকে। জানিয়ে রাখি আপনাদের দীপ্তি হচ্ছে এই ছোট্ট কন্যার নাম। ৯ লাখ ১১ হাজার মানুষ এই ভিডিওটি দেখেছে এবং লাইক করেছেন ৪ হাজার বেশি মানুষে। প্রশংসা করে ভরিয়ে দিয়েছে মানুষজন।

Related Articles