×
অফবিট

টুপি বিক্রি করে সংসার চালাতেন বাবা, ৯৬.৬% শতাংশ নম্বর পেয়ে উচ্চমাধ্যমিকে টপার মেয়ে, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

পিতা বাজারে গিয়ে টুপি ও অন্যান্য জিনিস বিক্রি করে সংসার চালায়। এমন দরিদ্রতার মধ্যেই চলে তাদের সংসার। এরমধ্যে সারা দেশজুড়ে করোনাকালীন অবস্থায় যখন লকডাউন ঘোষিত হয়েছিল সেই সময় থেকে মারাত্মক আর্থিক দুর্দশার সম্মুখীন হতে হয়েছিল তাদের।এমনকি দুবেলা খাবার জোটানোও মুশকিল হয়ে উঠেছিল। কিন্তু, এর মাঝেও নিজের মেয়ে সিমরানের পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছেন তাঁর পিতা। কেননা, তার মেয়ে যে ছিল অত্যন্ত মেধাবী ছাত্রী। যদিওবা অভাব অনটনের কারনে সিমরানের মা তাঁর পড়াশোনা বন্ধ করে দেওয়ার কথা ভেবেছিলেন কিন্তু, পিতার বিশ্বাস ছিল তাঁর মেয়ে একদিন না একদিন তাদের নাম উজ্জ্বল করবেই। সম্প্রতি, উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় ৯৬.৬% নাম্বার পেয়ে বাবার মুখ উজ্জ্বল করল সিমরান।

বিজ্ঞাপন

রাঁচির উরসুলিন কনভেন্ট গার্লস স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণীর বিজ্ঞানের ছাত্রী সিমরান নৌরিন (Simran Nawreen), যে কিনা দারিদ্রের সাথে লড়াই করে পরীক্ষায় দুর্দান্ত রেজাল্ট করে সফলতা অর্জন করেছে। দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষার ৪৭৬ নম্বর পেয়ে রাঁচি জেলার প্রথম স্থান অধিকার করেছে সিমরান, সেই সাথে গোটা রাজ্যে প্রথম স্থান অধিকার করেছে সে।

আসলে, অনেক সময় দেখা যায় এমন অনেক ট্যালেন্টেড শিক্ষার্থী রয়েছেন যারা আর্থিক অভাবের কারণে নিজেদের পড়াশোনায় জলাঞ্জলি দিতে বাধ্য হন। কিন্তু এর মাঝেও এমন অনেকেই রয়েছেন যারা আর্থিক অবস্থায় থাকলেও নিজেদের পরিবারকে পাশে পেয়ে কঠোর পরিশ্রম ও মনের জোরের মাধ্যমে পড়াশোনায় প্রথম স্থান পাওয়ার স্বপ্নকে পূরণ করতে সক্ষম হয়। এছাড়া কথাতেই তো আছে, ইচ্ছা থাকলেই উপায় হয়। এবারে এই বাক্যটি একেবার সত্য করে তুলছেন সিমরান।

প্রসঙ্গত, সিমরান যখন দ্বাদশ শ্রেণীর রেজাল্ট আনতে যাচ্ছিলেন তখন সে তাঁর সঙ্গে মাকে নিয়ে গিয়েছিল। রেজাল্ট জানার পরও অত্যন্ত খুশি হয়েছিলেন দুজনে, সেইসঙ্গে সিমরান যে দশম শ্রেণীতে টপ করেছে এর মাধ্যমে তিনি আশা রেখেছিলেন যে দ্বাদশ শ্রেণীর দুর্দান্ত রেজাল্ট করবে তার মেয়ে। এছাড়া সিমরানের ইচ্ছা ছিল সিবিএসই স্কুল থেকে পড়াশোনা করবার, কিন্তু ছোটবেলা থেকে তার পরিবারে আর্থিক অবস্থার এমন দুর্দশা দেখে নিজের ইচ্ছাকে জলাঞ্জলি দিয়েছিল সিমরান। তবে, সরকারি স্কুলে পড়াশোনা করে পরিবারে আর্থিক দূর্দশা দূর করবার পথে নিজের নাম লিখেছেন সিমরান।

Related Articles