×
অফবিট

সংসার চালাতে মা পালতেন মোষ! প্রথম চেষ্টায় UPSC পাস করে সকলকে তাক লাগলেন ছেলে, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

কথায় আছে, জীবনের সফলতা পাওয়া সহজ কথা নয়। তবে হাল ছেড়ে নয়, সফলতা অর্জন করার জন্যে পেছনে লেগে থাকতে হয়। কারণ ইচ্ছা থাকলে উপায় হবেই। এবার তা বাস্তবে প্রমান করে দেখালেন বিশাল নামের এক যুবক। ২০২২ সালে ইউপিএসসি দিয়ে অনেক ছাত্র-ছাত্রীই উত্তীর্ণ হয়েছে। যার মধ্যে একজন বিশাল। প্রথম চেষ্টাতেই সে ইউপিএসসি পরীক্ষায় পাশ করে অবাক করে দিয়েছেন। তিনি ৪৮৪ রেঙ্ক নিয়ে পাশ করেছেন। তবে বিশালের এই সাফল্যতা মোটেই সহজ ছিলনা। কারণ তিনি খুব দরিদ্র পরিবারের ছেলে।

বিজ্ঞাপন

তাঁর মা গরু পালন করে কোনোরকমে সংসার চালাতেন। এমন পরিস্থিতিতে তাঁর এই পরীক্ষার ফি দেওয়ার মতনও টাকা ছিলনা। কিন্তু বিশাল হাল ছাড়েননি এবং ইউপিএসসি পরীক্ষায় সফল হয়ে এক্কেবারে দেখিয়ে দিয়েছেন। বিশালের জন্ম মুজ্জফরপুরের মুকসুদপুর গ্রামে। ২০০৮ সালে বিশালের বাবা মারা যায়। বাবা মারা যাওয়ার পর বিশালের পরিবারের অবস্থা আরো খারাপ হয়ে যায়। এরপর বিশালের মা রীনা দেবী গরু-মোষ পালন করে দুধ বিক্রি করা শুরু করে।

আর পরিবারের এই অবস্থার কথা ভেবেই বিশাল তাড়াতাড়ি নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করার জন্যে উঠে পড়ে লেগেছিলেন। ২০১১ সালে বিশাল মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করেন। এরপর তিনি ২০১৩ সালে আইআইটি কানপুরে ভর্তি হয়েছিলেন। এরপর ২০১৭ সালে ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করে রিল্যায়েন্সে চাকরি শুরু করেন। কিন্তু বিশালের শিক্ষক চেয়েছিলেন বিশাল চাকরি ছেড়ে ইউপিএসসি-এর জন্য প্রস্তুতি নিক। বিশাল শিক্ষকের কথা অনুযায়ী ইউপিএসসি-এর জন্য প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেন।

কিন্তু এই সময়ে বিশালের পরিবারের আর্থিক অবস্থা দুর্বিসহ হয়ে পড়ে। এমনকি বিশালের কাছে ইউপিএসসি পড়াশোনার জন্যেও অর্থ ছিল না। তাই বিশালের শিক্ষক গৌরীশংকর তাঁর পড়াশোনার খরচ তুলে নেন। এমনকি তাঁর পরীক্ষার প্রস্তুতি চলাকালীন সময় বিশাল তাঁর শিক্ষকের বাড়িতেই থাকতেন। তখন তাঁর শিক্ষক আর্থিক ও মানসিকভাবে তাঁর মনে সাহস যুগিয়ে ছিলেন। এরপর বিশাল দিনরাত পরিশ্রম করে ইউপিএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। আর তিনি কঠোর পরিশ্রমের ফলেই প্রথম চেষ্টাতেই UPSC উত্তীর্ণ হন। আর বিশালের এই সাফল্যে বিশালের মা ও শিক্ষক খুব খুশি। গ্রামের লোকেরাও বিশালকে নিয়ে খুব গর্বিত।

Related Articles