×
অফবিট

ভারতের প্রত্যেকটি স্টেশনের বোর্ডে লাল রঙে কী লেখা থাকে? পুরোটা জানলে গর্ববোধ করবেন বাঙালিরা

বিজ্ঞাপন

আমরা ট্রেনে যাতায়াত করে থাকি বেশি। তবে কত জন স্টেশনের হলুদ বোর্ডের মধ্যে স্টেশনের নাম বাদেও লাল রং দিয়ে লেখা লক্ষ্য করেন তা বলতে পারা মুস্কিল। আসলে আমরা লক্ষ্য করি না বা যারা লক্ষ্য করেন তারা বিষয়টির উপর তেমন গুরুত্ব দিতে চাননা। আজকের প্রতিবেদনে এই লাল অক্ষরে লেখাগুলো কী এবং কেন লেখা হয় সেই বিষয়ে জানাব।

বিজ্ঞাপন

 

আসলে স্টেশনের নামের বোর্ডের নিচে লাল রঙে লেখা থাকে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সেই নির্দিষ্ট রেল স্টেশনটির উচ্চতা। আপনাদের বোঝানোর জন্যে আজ দুটি স্টেশনের ছবি নেওয়া হয়েছে। একটি দীঘা অপরটি হলো দার্জিলিং। জানিয়ে রাখা ভালো দার্জিলিং মানে ঘুম স্টেশনের ছবি ব্যবহার করা হয়েছে। দীঘা স্টেশনটি রয়েছে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৭.৪০ মিটার উচ্চতায় রয়েছে এবং ‘দার্জিলিং হিমালয়ান রেলওয়ে’র ঘুম স্টেশনটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২,২৫৮ মিটার উচ্চতায় রয়েছে।

এতক্ষণে বুঝে গেছেন যে রেল স্টেশনের বোর্ডের লালরঙা লেখাটি আসলে কী। তবে কেনো লেখা থাকে সেই বিষয়ে এই বার আপনাদের বিস্তর জানাবো। আসলে প্রযুক্তিবিদদের কাছে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে গড় উচ্চতা বা ‘মিন সি লেভেল’ (MSL) জানা অতীব জরুরি। রেলস্টেশন তৈরির সময় এবং ট্রেন চালানোর সময় এটি গুরুত্বপূর্ণ।

ট্রেন চালানোর সময় কোন উচ্চতা থেকে কোন উচ্চতায় ট্রেন যাবে তার ওপর উপর নির্ভর করে ট্রেনের ইঞ্জিনের গতিবেগ কমাতে বা বাড়াতে হয়। যেমন , একটি ট্রেন ২৫০ এমএসএল থেকে ২৮০ এমএসএল উচ্চতায় যাবে। সেক্ষেত্রে ৩০ এমএসএল উচ্চতায় উঠতে ইঞ্জিনের শক্তি বাড়ানো প্রয়োজন। আবার বিপরীত দিকে হলে উল্টোটা প্রয়োজন। এই কারণেই স্টেশনের বোর্ডে এমনটা লেখা হয়ে থাকে।

Related Articles