×
অফবিট

স্বামীকে ছেড়ে দিল্লি এসে ব্যবসা শুরু করে বর্তমানে ৫ কোটি টাকার মালকিন মহিলা, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

কথায় আছে ইচ্ছা থাকলেই উপায় হয়। আর আজ বলবো এমন এক সাফল্যময় মহিলার কথা যিনি কোনদিনও কলেজ কি স্কুলের গন্ডিতেই পা পর্যন্ত রাখেননি, ছিলেন একজন গৃহিনী। সেই সূত্রে আগে কখনই ঘর থেকে বাইরে বেরোতেন না তিনি। কিন্তু, একদিন মাত্র ৫০০ টাকা দিয়ে ব্যবসা শুরু করে আজ হয়ে উঠেছে ৫ কোটি টাকার মালকিন।

বিজ্ঞাপন

নাম হচ্ছে তার কৃষ্ণা যাদব (Krishna Yadav), যিনি বর্তমানে সফল ব্যবসায়ীদের মধ্যে অন্যতম একজন। কৃষ্ণার স্বামী শ্রমিকের কাজ করতেন। তবে, হঠাৎ করেই কৃষ্ণা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তিনি এই শহর ছেড়ে অন্য কোথাও গিয়ে ছোটখাটো কাজ করবেন। তাই বুলন্দ শহর ছেড়ে তিনি পাড়ি দিয়েছিলেন দিল্লিতে। সেখানে এক ব্যক্তিকে খেতে বপন করতে দেখেন। সেই সময় বুঝতে পেরেছিলেন সবজি খুব সস্তায় বিক্রি হওয়ার কারণে এতে তার কোন লাভ নেই।

তারপর তিনি অনেক ভাবনা চিন্তা করতে করতে মনে করলেন যে, তাঁর দিদা সবজির খুব সুস্বাদু আচার তৈরি করতেন। তাহলে, সবজি দিয়ে আচার তৈরি করে বিক্রি করা শুরু করি। এর ফলে হয়তো আমরা সবজির ভাল দাম পেয়ে যাব এবং পারলে আরো কিছু টাকা আয় করতে পারবো। তারপর তাঁর স্বামীর মতামত নিয়েই নিজেকে সবজি দিয়ে আচার তৈরীর কাজে যুক্ত করে ফেলেন।

তবে, আচার তৈরি করে সেটি কেমন হয়েছে না হয়েছে এবং তা আদৌ বিক্রি হবে কিনা এই সমস্ত তথ্যগুলি জানার জন্য প্রথমে ৫ কেজি সবজির আচার তৈরি করে আশেপাশের মানুষজনদের সেই আচার খাওয়ান। বলাই বাহুল্য তাঁর হাতে তৈরি সবজির আচার খেয়ে বেশ প্রশংসা করেছিলেন সেখানকার বাসিন্দারা।

কিন্তু, কোন কিছু চলার পথ যে এত সহজ নয়। অর্থাৎ প্রথমদিকে তার তৈরি আচার সেরকমভাবে বিক্রি হতো না। তবে, একারণে সাহস হারাননি কৃষ্ণা। তাই তো জীবনের সমস্ত সমস্যার সম্মুখীন হয়ে চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছেন তিনি। প্রথম প্রথম রাস্তার ধারেই একটি চেয়ার টেবিল এর মাধ্যমে আচার বিক্রি করা শুরু করেন। আর কৃষ্ণা এই চেষ্টার ফল আজ হাতেনাতে পেয়েছে। বর্তমানে তার কোম্পানির টার্নওভার ৫ কোটি টাকার বেশি, সেই সাথে হাজারো হাজারো মহিলাদের স্বাবলম্বী করার সুযোগ গড়ে দেন তিনি।

Related Articles