×
নিউজ

৮০ বছরের অপেক্ষার অবসান! শেষমেশ চতুর্থ প্রজন্মে জন্ম নিল কন্যা সন্তান, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

এই শতাব্দীতেও বহু পরিবারে কন্যা সন্তানের জন্ম ভালো চোখে দেখা হয় না। অনেকেই কন্যা সন্তানের জন্মানোর কথা শুনে খুশি হননা। তবে ব্যতিক্রম তো আছেই। এমন এক পরিবারের কথা বলবো, যাদের কন্যা সন্তানের জন্মানোর কথা শুনে আনন্দ ধরে রাখতে পারছে না তারা। হসপিটাল থেকে জাকজমোক ভাবে বাড়ির লক্ষ্মীকে বাড়ি এনেছেন তারা। কেবল বাড়ির লোক নয়, গোটা পাড়া তথা গ্রামের লোক এই খুশিতে গা ভাসিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মধ্যপ্রদেশের শেওপুর জেলার একটি নগর গণভাদা অঞ্চলে কন্যা সন্তান জন্মানোকে কেন্দ্র করে আয়োজন করা হয়েছিলো এক বিশাল এবং বিশেষ উৎসব। কুন্দন বৈরভা মিডিয়াকে জানান যে, দীর্ঘ ৮০ বছর অপেক্ষার পর তাদের পরিবারে কন্যা সন্তানের আগমন হয়েছে। আরো জানান নিজের দুই পুত্র সন্তান আছে। ভাইয়ের বউয়ের প্রসব যন্ত্রণা শুরু হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারপরেই সকলে পেয়েছেন সেই খুশির খবর।

মিডিয়ার সাথে কথা বলার সময় কুন্দন বৈরভা জানিয়েছেন, “সারাদেশ তথা তাদের গ্রামেও এমন বহু পরিবার আছে যারা কন্যা সন্তানের জন্মানোর খবর পেলে হতাশায় ভেঙে পড়েন। তবে এটা অনেকেই জানেন না হয়তো পুত্র সন্তান এবং কন্যা সন্তান দুই ভগবানের দান। আমরা যদি কন্যা সন্তানকে ঠিকমতো লালন-পালন করতে পারি এবং সুশিক্ষা সহিত উচ্চশিক্ষা প্রদান করতে পারি তবে কন্যা সন্তান হলেও একদিন খ্যাতির শীর্ষে পৌঁছবেই।”

নবাগত কন্যার আগমনের পূর্বে পুরো বাড়িটি ফুল দিয়ে সাজানো হয়েছিল। সন্তান নিয়ে বাড়ি ফিরলে কন্যা সন্তান এবং তার মাকে ফুলের মালা পরিয়ে সাথে আরতি সহযোগে বরণ করে বাড়িতে ঢকানো হয়। তাদের সম্পূর্ণ ঘরের কোনায় কোনায় যেন খুশি বিরাজ করছে। কন্যা সন্তানের আগমনীর খুশিকে স্মৃতি রূপে তুলে রাখার জন্য সাদা কাপড়ের ওপর ছোট্ট শিশুটির আলতা লাগা ক্ষুদে পায়ের চিহ্ন নিয়েছে বাড়ির লোক।

Related Articles