×
নিউজ

সোনা ও লোহার পর বিহারের জমুই থেকে পাওয়া গেল প্রাচীন ইতিহাসের খাজনা! রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

বহু কাল আগে হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন ধর্মের মিলনস্থল হিসেবে মগধ নামে পরিচিত ছিল ভারতের অন্যতম রাজ্য বিহার (Bihar)। যেখানে প্রাচীন ইতিহাসের পাশাপাশি রয়েছে বহু সংস্কৃতি। আর এর মধ্যেই ধরা পরেছে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক দৃষ্টিকোণ। ঘন বন, পাহাড়ি এলাকার বিভিন্ন স্থান ছাড়াও প্রাগৈতিহাসিক কাল থেকে প্রাচীনকালের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে দক্ষিণ বিহারে অবস্থিত জামুইতে (Jamui)। তাই তো ইতিমধ্যে ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ বিভাগ থেকে জামুই জেলায় জরিপে কাজ শুরু করে হয়ে গিয়েছে।

বিজ্ঞাপন

জামুইয়ের প্রত্নতাত্ত্বিক অনুসন্ধানের পরিচালক ডঃ রবিশঙ্কর গুপ্ত বলেছেন- ভগবান মহাবীর ও গীধেশ্বরের জন্মস্থলের পর্বতশ্রেণীতে দেখা মিলেছে প্রচুর সংখ্যক শিলা চিত্রের। সেখানে, বড় শিলা ও রক পেইন্টিং ছাড়াও রয়েছে বড় বড় রক শেল্টার। আর সেখানেও রক পেইন্টিং করা রয়েছে, এবং এই রক পেইন্টিং গুলিতে যা যা চিত্র দেখা মিলেছে তা সত্যিই অনবদ্য।

এখানে যেমন মানুষ, গাছ গাছালি, বিভিন্ন প্রাণী,পাখি, সূর্যের ছবি আঁকা রয়েছে তেমনি রয়েছে বৃত্ত ও জ্যামিতিক রেখা অঙ্কনের চিহ্ন। আর এই সমস্ত ছবিগুলিতে লাল রঙের ব্যবহার করা হয়েছে। এমনকি এই অঞ্চলের নিত্তলিথিক, চ্যালকোলিথিক থেকে শুরু করে ইতিহাস ও মধ্যযুগের প্রথমদিকের রক পেইন্টিং ও পাওয়া গিয়েছে।

এর পাশাপাশি আশেপাশের এলাকায় বিভিন্ন হাতিয়ার, পাকা ইটের টুকরো ও মৃৎপাত্রের টুকরো পাওয়া গিয়েছে। যেগুলি অনেক আগে থেকেই মানুষের কর্মকান্ডের এলাকা ছিল বলে মনে করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গেই আগে মানুষ কাজের পর বিশ্রামের জন্য পাথরের উপর বিভিন্ন রকমের চিত্র অঙ্কন করত। আর যেখানেই এই গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দেশক গুলি পাওয়া যাবে সেখানেই শুরু করা হবে প্রত্নতাত্ত্বিক সমীক্ষায় কাজ। উল্লেখ্য, জামুইয়ের প্রত্নতাত্ত্বিক ও ঐতিহাসিকের পরিপেক্ষিতে নয়াদিল্লি বিহার মিউজিয়াম, পাটনা কর্তৃক প্রত্নতাত্ত্বিক জিরাফের কাজ ইতিমধ্যে শুরু করা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles