×
নিউজ

ভারতের ৯টি বিলাসবহুল ট্রেন যা হার মানাবে ফাইভ স্টার হোটেলকেও, জানুন একটি টিকিটের মূল্য

বিজ্ঞাপন

স্থল পথে যাতায়াতের জন্যে আরাম দায়ক, সুরক্ষিত এবং সুবিধা জনক ট্রেন জার্নি সব থেকে বেস্ট। ভারতে বসবাসকারী নাগরিকদের জন্য যাতায়াতের একটি প্রধান মাধ্যম ভারতীয় রেলওয়ে (Indian railways)। বর্তমানে বিভিন্ন গ্রাম ও শহরের মধ্যে ছড়িয়ে রয়েছে রেল লাইন। আর ছড়িয়ে থাকা এই রেল লাইন গুলির উপর দিয়ে চলা ট্রেন ভারত ও ভারতের মানুষদের জীবনের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।ভারতীয় রেলওয়ে কারণেই ভারত খুব দ্রুত উন্নতি করেছে এবং ভবিষ্যতেও করবে।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের বৃহত্তম রেলওয়ে নেটওয়ার্ক গুলির মধ্যে ভারতীয় রেল রয়েছে চতুর্থ স্থানে। ভারতীয় রেল চালু হয়েছিলো ব্রিটিশ আমলের সময় থেকে। সূত্র অনুযায়ী ১৯ শতকে প্রথম ভারতে ট্রেন চালু হয়েছিল। ১,১৫,০০০ কিমি এরিয়া জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে ভারতীয় রেলের নেটওয়ার্ক। এই রেলওয়ে বিস্তৃত নেটওয়ার্কে রয়েছে প্রায় ৭৩৪৯ টি রেল স্টেশন। এই স্টেশন গুলি থেকে ২০০০০ এর বেশি যাত্রীবাহী বা প্যাসেঞ্জার ট্রেন এবং ৭০০০ এর বেশি পণ্যবাহী বা মেল ট্রেন চলাচল করে। ভারত থেকে ডায়েরেক্ট বিদেশ পর্যন্ত যাবে ২১ জুন ২০২২ থেকে IRCTC দ্বারা দেশের প্রথম এমন ট্রেন চালু করা হয়েছে। ৬০০টি সিট বিশিষ্ঠ ট্যুরিস্ট নামের ট্রেনটি ৮টি রাজ্যের ১২টি বড় শহরের মধ্য দিয়ে যাবে। ট্রেনটি যাত্রীদের নিয়ে দিল্লির সফদরজং স্টেশন থেকে যাত্রা শুরু করার পর ‘শ্রী রামায়ণ যাত্রা’ করিয়ে যাত্রীদের নেপালের জনকপুরে নিয়ে যাবে।

এই ট্রেনের সুযোগ-সুবিধা, সৌন্দর্য দেখে লোকে যেমন চমকে যাবেন, তেমনি ভাড়া জেনে মানুষ অবাক হবেন।ট্রেনের সুযোগ সুবিধা ৫ স্টার হোটেলের থেকে কম নয়। এই ট্রেনের প্রতি সিটের ভাড়া ৬২৩৭০ টাকা ভারত সরকার নির্ধারণ করেছেন। আসুন আমরা এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে জেনেনি ভারতের আরো কয়েকটি একমন বিলাশ বহুল ট্রেনের কথা, যার খরচা ও সুযোগ-সুবিধা এবং সৌন্দর্য কোন ৫ স্টার লাক্সারি হোটেলের থেকে কম নয়।

১• রয়েল রাজস্থান অন ও উইল: ট্রেনটি কোন ৫ স্টার লাক্সারি হোটেলের থেকে কম নয়। ভারতীয় রেল দ্বারা চালিত বিলাসবহুল ট্রেনটি রাজস্থান ট্যুরিজম ও ভারতীয় রেল কতৃপক্ষের মিলিত একটি প্রকল্প। এই ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে নতুন বা নয়া দিল্লি থেকে যার গন্তব্য রাজস্থানের পর্যটন শহর কেন্দ্র গুলি যেমন যোধপুর, চিতোরগড়, উদয়পুর, রণথম্বোর ও জয়পুরের পাশাপাশি মধ্যপ্রদেশের খাজুরাহো এবং উত্তরপ্রদেশের আগ্রার, বারাণসী পর্যন্ত ট্রেনটি যাত্রা করে।এই ট্রেনের সর্বাধিক টিকিটের ভাড়া হলো ৭,৫৬,০০০ টাকা। এছাড়াও এই ট্রেনটি চড়তে আপনাকে কমপক্ষে ৩,৬৩,০০০ টাকা খরচ করতে হবেই। তার কারণ ট্রেনটিতে একটি স্টোর, সেলুন, লাউঞ্জ বার, এলসিডি টিভি, এসি, বেডরুম, জিম, স্পা এবং বার রয়েছে।যা এই ট্রেনটিকে একটি রাজকীয় ট্রেনে পরিণত করে।

২• প্যালেস অন উইল: আধুনিক জীবনের সমস্ত সুযোগ-সুবিধা দিয়ে সজ্জিত ট্রেনটিকে বিশ্বের একটি বিলাসবহুল অন্যতম ট্রেন হিসেবে গণ্য করা হয়ে থাকে। ট্রেনটি নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে যে এই ট্রেনটি একটি চলমান প্রাসাদ। ২ টি ডাইনিং রুম, রেস্টুরেন্ট, বার এবং সেলুন দ্বারা সু সজ্জিত ট্রেনটি ভারতীয় রেলওয়ের চালিত সবচেয়ে বিলাসবহুল ট্রেনের মধ্যে একটি। দেশের রাজধানী দিল্লি থেকে যাত্রা শুরু করা ট্রেনটির গন্তব্য জয়পুর অব্দি। এরমাঝে আগ্রা, ভরতপুর, যোধপুর, জয়সালমের, উদয়পুর, চিতোরগড়, সওয়াই মাধোপুরে শহর গুলির উপর দিয়ে ট্রেনটি চলাচল করে। এই ট্রেনের সর্ব নিম্ন ভাড়া ৫,২৩,৬০০ টাকা থ এবং সর্বোচ্চ ভাড়া ৯,৪২,৪৮০ টাকা।

৩• মহারাজা এক্সপ্রেস : এই ট্রেনটি ভারতীয় রেলওয়ের চালিত সবচেয়ে দামি ট্রেন। একটি বড় ডাইনিং রুমের সাথে বার, লাউঞ্জ এবং এলসিডি টিভি যুক্ত ট্রেনটি ছড়ার ইচ্ছা প্রতিটি ভারতীয় পোষণ করে থাকে। এই ট্রেনটি ভারতের দিল্লি থেকে যাত্রা শুরু করে আর ট্রেনটির গন্তব্য মায়া নগরী মুম্বাই হয়। আগ্রা, বারাণসী, জয়পুর, রণথম্ভোর, জয়পুর উপর দিয়ে ট্রেনটি চলাচল করে। এই ট্রেনের ভাড়া শুরু হয় ৫,৪১,০২৩ টাকা থেকে এবং সর্বউচ্চ ভাড়া ৩৭,৯৩,৪৮২ টাকা।

৪• ডেকান ওডিসি : বিশ্বের বিলাসবহুল ট্রেনের তালিকার মধ্য অন্যতম নাম ডেকান ওডিসি। এই ট্রেন মায়া নগরী মুম্বাই থেকে যাত্রা শুরু করে এবং গোটা রাজস্থান দর্শন করে। রঙ নীল রঙের এই ট্রেনটি সুযোগ সুবিধা ৫ স্টার হোটেলের থেকে কম নয়। ২১ টি বিলাসবহুল কোচ যুক্ত ট্রেনটিতে রয়েছে দুটি রেস্তোরাঁ, কম্পিউটার, ইন্টারনেট, বার এবং একটি ব্যবসা কেন্দ্র। এই ট্রেনের ভাড়া শুরু হয় ৫,১২,৪০০ টাকা থেকে এবং সর্বোচ্চ ভাড়া দাড়ায় ১১,০৯,৮৫০ টাকায়।

৫• সোনার রথ : শুধু নামেই নয় এই ট্রেনে যাত্রা করলে আপনার অনুভূতি সোনার রথে যাত্রা করার মত হবে। এমন কি ট্রেনটি দেখতেও সোনার রথের মতোই। ভারতীয় রেলওয়ে ও কর্ণাটক সরকারের যুগ্ম উদ্যোগে এই ট্রেনটি চালু হয়েছে। এই ট্রেনের ভাড়া ৩,৩৬,১৭৩ টাকা থেকে শুরু হয় এবং সর্বোচ্চ ভাড়া ৫,৮৮,২৪২ টাকা।

৬• মহাপরিনিরাবান এক্সপ্রেস : ৫ স্টার হোটেলের বিলাশ বহুল সুযোগ সুবিধা যুক্ত ট্রেনটি বৌদ্ধ ভারত দর্শন করায়। এই ট্রেনটির ফার্স্ট ক্লাসের ৭ দিনের প্যাকেজ জন্যে ৭৫,০০০ টাকা ও সেকেন্ড ক্লাসের ৭ দিনের প্যাকেজ জন্যে ৬০,০০০ টাকা ভাড়া দিতে হয়।

৭• রয়েল ওরিয়েন্টাল ট্রেন : ১৮৫৫ সালে অর্থাৎ ব্রিটিশ আমলের সময় চালু হওয়া এই ট্রেনটি প্রাচীনতম বিলাসবহুল ট্রেন। ট্রেনটির আপনাকে রাজস্থান, গুজরাট ইত্যাদি বড় শহর দর্শন করাবে। এই ট্রেনের টিকিটের দাম ৮০০০ টাকা।

৮• ফেয়ারী কুইন এক্সপ্রেস : ১১০০০ টাকা টিকিটের বিনিময়ে এই ট্রেনটি কম সময়ের যাত্রার জন্য একটি দারুন বিকল্প।

৯• পাঞ্জ তখত দর্শন ট্রেন : ১৫,০০০ টাকা টিকিটের বিনিময়ে এই ট্রেনটি আপনাকে পাঁচটি প্রধান গুরুদ্বারকে দর্শন করায়। মূলত ভারতের শিখ সম্প্রদায়ের ধর্মীয় স্থান গুলির দর্শনের জন্য এই ট্রেনটি চালু করা হয়।

Related Articles