×
নিউজ

১৫০ বছরের পুরনো ঘড়ি যা সূর্যের রশ্মিকে কাজে লাগিয়ে বলে দেয় সঠিক সময়, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

এই পৃথিবীতে অনেক কিছুই আমাদের দৃষ্টিতে বিস্ময়কর। যা বিজ্ঞানকেও হার মানবে। জানেন কি, বিহারের রোহতাস জেলার দেহরিতে ১৫০ বছরের পুরনো একটি চমৎকার ঘড়ি রয়েছে, যার টেকনোলজি বিজ্ঞানকেও পেছনে ফেলে দেবে। এর বৈশিষ্ট্য হল, এই ঘড়িতে চাবি ঘোরানোর এবং ব্যাটারি ভরারও কোনো প্রয়োজন নেই। কিন্তু তা ছাড়াও এই ঘড়ি সঠিক সময় বলে দিতে পারে।

বিজ্ঞাপন

জানা গিয়েছে, শাশারামের কাছে রোহতাস জেলার ডেহরির আনিকুটে সেচ দফতরের ক্যাম্পাস এলাকায় এই অদ্ভূত সূর্যঘড়ি তৈরি করা হয়েছিল ১৮৭১ সালে। সন ক্যানেল সিস্টেম নির্মাণের সময়, যান্ত্রিক কর্মশালায় শ্রমিক ও কর্মকর্তাদের সময় দেখার জন্যে এই ঘড়ির ব্যবস্থা করে দিয়েছিল ব্রিটিশ সরকার। এখানে একটি সরকারি বোর্ডও রয়েছে, যেখানে লেখা আছে, এই ঘড়িটি স্থাপিত হয়েছিল ১৮৭১ খ্রিস্টাব্দে।

কিন্তু সবথেকে অবাক করা বিষয় হল, ঘড়িটি আজও সঠিক সময় বলে দেয়। এর ভিতরে একটি পুরানো প্ল্যাটফর্মে একটি সূর্যঘড়ি রয়েছে। এটির সঙ্গে একটি ধাতব প্লেট সংযুক্ত হওয়ার কারণে আজও রোমান ভাষায় পাথরের উপর লেখা হিসাবটি পড়ে নিতে পারবেন। জানা গিয়েছে, সূর্যের রশ্মি উদয় থেকে অস্ত যাওয়ার সঠিক সময় পরিমাপ করে এই ঘড়িটি প্রতি আধ ঘন্টা সঠিক সময় দেখায়। আসলে ভৌগোলিক স্তরে পৃথিবীর ঘূর্ণন গতির সঙ্গে এটি মিলে গেছে।

আগে এই প্ল্যাটফর্মে ঘড়িটিকে কেবল খোলা জায়গায় রাখা হত, কিন্তু কয়েক বছর আগে এই রৌদ্রোজ্জ্বল ঘড়িটিকে ঘিরে একটি ছোট সীমানা তৈরি করা হয়েছে। এখানে রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচ্ছন্নতার বিশেষ কোনো ব্যবস্থা নেই। সেই কারণেই ঘড়িটি ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়ে যাচ্ছে। এই সূর্যঘড়ির প্ল্যাটফর্মটিতেও ফাটল দেখা দিয়েছে। দূরদূরান্ত থেকে মানুষ এটি দেখতে আসে। তাই এই ইতিহাসকে আমাদেরই বাঁচিয়ে রাখতে হবে।

Related Articles