×
লাইফস্টাইল

নখের রং পাল্টে যাওয়া ইঙ্গিত দেয় হাই কোলেস্টরলের! রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

আমরা যদি শরীরে কোনো রোগে পড়ি, তা কিছু আমাদের চোখে মুখে ফুটে ওঠে। কারণ শরীর কোনো রোগের শিকার হলে তার প্রভাব বিভিন্ন অঙ্গের উপর পড়ে। এছাড়াও কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে গেলেও আমাদের শরীরে নানা উপসর্গের দেখা দেয়। আর আপনি যদি এর সম্পর্কে আগেভাগে কিছু জেনে রাখতে পারেন, তাহলে সময়ের আগেই এহেন মারাত্মক রোগ থেকে এড়িয়ে যেতে পারেন। চলুন আজ আমাদের জানিয়ে দিই যে, শরীরের কোন কোন লক্ষণ দেখলে আপনি আগে থেকেই সচেতন হতে পারেন এবং সময়মতো পরীক্ষা করে নিতে পারেন। আর সময় থাকতে থাকতেই চিকিৎসা শুরু করে দিতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

হাই কোলেস্টেরলের লক্ষণ ও উপসর্গ

পায়ের উপর প্রভাব:

শরীরে কোলেস্টেরল বেড়ে গেলে সর্বপ্রথম পায়ে প্রভাব পড়তে শুরু করে। পা অসাড়তা অনুভূতি হতে শুরু করে। কোনও নড়াচড়া অনুভূত হয় না। সবসময়ে পা ঝিমিয়ে থাকে। এছাড়াও পায়ে শিহরন অনুভূত হতে পারে। এবং ঠান্ডা অনুভূত হতে পারে।

পা ব্যথা:

এমনকি পায়ের শিরাতেও কোলেস্টেরলের কারণে ঠিকমতো রক্ত ​​চলাচল হয় না, অক্সিজেনও ঠিকমতো পৌঁছায় না। এমন অবস্থায় পায়ে তীব্র ব্যথা হয়।

হলুদ নখ: 

কোলেস্টেরলের প্রভাব নখেও দেখা দিতে পারে। কারণ বেড়ে যাওয়া কোলেস্টেরল শরীরের শিরাগুলোকে ব্লক করে দেয়, যার কারণে শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্ত ​​পৌঁছতে পারেনা। এর প্রভাব হাতের নখেও পড়তে শুরু করে। যার ফলে নখে পাতলা, হলুদ, গাঢ় বাদামী রেখাও দেখা যায়।

কি কি সতর্কতা অবলম্বন করবেন

শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা যাতে না বেড়ে যেতে পারে, সে জন্য অবশ্যই কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা।

যেমন ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করতে হবে। কারণ এটি হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি আরও বাড়িয়ে দেয়। এছাড়া যেসব খাবারে স্বাভাবিকভাবেই চর্বি কম থাকে সেই খাবার গুলো খেতে হবে। এছাড়াও স্যাচুরেটেড ফ্যাট জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। এবং প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে কারণ ব্যায়াম স্বাস্থ্যের জন্যে খুবই ভালো।

Related Articles