×
লাইফস্টাইল

ঘন ও লম্বা চুল পেতে আজ থেকে মেনে চলুন এই টিপস, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

নানা মরসুমে নানা কারণে চুল উঠতে থাকে, বা উঠতে পারে, বা কমে যেতে পারে চুলের ঘনত্ব। কিন্তু ঘন এবং লম্বা চুল দুইই ফিরে পাওয়া মোটেই সহজ কথা নয়। তাই এবার কয়েকটি ঘরোয়া উপায়েই এবার চুলের যত্ন নিন। জেনে নিন, দ্রুত লম্বা চুল পেতে হলে কী কী টিপস মেনে চলবেন। আর এই টিপস গুলো মেনে নিলে আপনিও রূপকথার মতধ কোমর ছাপানো চুলের মালকিন হতে পারেন। তবে একটা কথা মনে রাখবেন চুলের যদি ঠিকঠাক যত্ন নেন, তাহলে চুল সহজে পড়বে না। চুলের পুষ্টি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে চুলের বৃদ্ধিও হয় তাড়াতাড়ি। তাই বড় চুল পেতে হলে চুলের ঠিকমতো পরিচর্চা করুন। কিন্তু কী ভাবে চুলের যত্ন নেবেন, কোন কোন বিষয়গুলো এড়িয়ে চলবেন, জেনে নিন!

বিজ্ঞাপন

প্রথমত, ​চুলে শ্যাম্পু করার পদ্ধতি বদলে ফেলুন। তবে আপনি কতটা ঘন ঘন শ্যাম্পু করছেন বা কী ধরনের জলে শ্যাম্পু করছেন, তার উপর আপনার চুলের বৃদ্ধি নির্ভর করে। রোজ রোজ শ্যাম্পু করা একেবারেই উচিত নয়, কারণ যাঁরা প্রতিদিন শ্যাম্পু করেন তাঁদের চুল অতিরিক্ত শুষ্ক হয়ে যায়। আর এই শুষ্কতার কারণেই চুল ভঙ্গুর হয়ে যায়, ফলে চুল ফাটতে এবং ঝরতে শুরু করে। তাই চুলকে শুষ্কতার হাত থেকে রক্ষা করতে সপ্তাহে মাত্র তিনবার শ্যাম্পু করুন।

দ্বিতীয়ত, ​নিয়মিত মাথার স্ক্যাল্প মাসাজ করুন। কারণ স্ক্যাল্পে মাসাজ করলে আপনার চুলের স্বাস্থ্য ভাল থাকবে। তাই কাজের ফাঁকে মাঝেমধ্যেই নিজেই মাসাজ সেরে নিন। এছাড়া চুলের গোড়ায় আঙুল চালালে মাথায় রক্তসঞ্চালন বাড়ে। চুলের ফলিকলে পুষ্টিও পৌঁছে যাবে। সেই কারণে সপ্তাহে একদিন অন্তর ল্যাভেন্ডার এসেনশিয়াল অয়েল দিয়ে ভালো করে মাসাজ করে নিন।

তৃতীয়ত, হট অয়েল ট্রিটমেন্ট নিন। চুলের গোড়ায় গোড়ায় তেলের পুষ্টি পৌঁছে দিতে মাসে অন্তত ২ বার হট অয়েল মাসাজ করুন। এর জন্য নারকেল তেল হালকা গরম করে নিয়ে চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভালো করে লাগিয়ে নিন। এরপর একটা বড়ো তোয়ালে দিয়ে উষ্ণ গরম জলে ডুবিয়ে ভালো করে নিংড়ে চুলে জড়িয়ে দিন। এর পর শ্যাম্পু করে নিন।

​চুল ধোওয়ার সময় সর্বদা ঠান্ডা জল ব্যবহার করুন। কারণ গরম জল চুলের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতিকর। তাই চুল ধোয়ার সময় বালতি বা গামলায় ঠান্ডা জল নিয়ে তাতে কিছুক্ষণ চুল ভিজিয়ে রাখুন। তাতে চুলের আর্দ্রতা বজায় থাকে।

শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার ব্যবহার করুন অবশ্যই। কারণ শ্যাম্পু করার পর চুলের স্বাভাবিক আর্দ্রতা শুষে নেয়। তাই হারানো আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতে কন্ডিশনারের প্রয়োজন। যাতে চুল মসৃণ আর উজ্জ্বল থাকে।

কেমিক্যাল থেকে চুলকে দূরে রাখুন। কারণ অতিরিক্ত কেমিক্যাল প্রডাক্ট চুলের পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক। তাই ঘন ঘন চুলে রং বা কৃত্রিম রাসায়নিক জিনিস লাগাবেন না। বিশেষত অর্গানিক প্রডাক্ট ব্যবহার করলে এই সমস্যা অনেকটাই এড়ানো যাবে। এছাড়া শরীরে প্রোটিন দিন কারণ শরীরে পর্যাপ্ত প্রোটিন না থাকলে চুলও মজবুত হবে না। তাই প্রতিদিনের খাবার তালিকায় অবশ্যই বিন, বা ডালজাতীয় খাবার, পালংশাক, দুধ রাখুন। এ ছাড়া তৈলাক্ত মাছ, আভোকাডো, বাদাম, তিসির তেলও খাবারের তালিকায় রাখতে পারেন।

Related Articles