×
লাইফস্টাইল

দুপুরে ভাতের সঙ্গে খাবার জন্য সুস্বাদু দই পটল, শিখে নিন রেসিপি

বিজ্ঞাপন

শহরে বৃষ্টি যেন আমাদের সঙ্গে লুকোচুরি খেলছে। আর রোদ এবং বৃষ্টির লুকোচুরিতে বাঙালি একেবারে শেষ। কোনও সময়ে এতটাই রোদ উঠছে যে, মানুষের গরমে দমবন্ধ হয়ে যাওয়ার জোগাড় হয়ে বসে। আবার কোনও কোনও সময়ে বৃষ্টি আমাদের এক্কেবারে প্রাণোচ্ছ্বল করে দিয়ে যায়। কিন্তু একঝটকা বৃষ্টির পর ঠাটা পড়া রোদ সবটাই একেবারে এলোমেলো করে দেয় তাইনা! তাই এই গরমের মধ্যে বাঁচতে তেল-মশলাযুক্ত খাবার ত্যাগ করুন। পেট ঠান্ডা রাখার মতো সবজি যেমন ঝিঙে, পটল ইত্যাদির নানারকম রেসিপি বানান। আজকে আমাদের প্রতিবেদন পটল দিয়ে একটি সুন্দর নিরামিষ রেসিপি, যা একদিকে যেমন হালকা, তেমনি তেল ঝাল মসলা বিহীন।অন্যদিকে নিরামিষ পদ হিসেবেও পূজার দিনে তৈরি করতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

উপকরণ:

১. ১০-১২ টা পটল
২. জিরেগুঁড়ো
৩. ধনেগুঁড়ো
৪. হলুদ গুঁড়ো
৫. কাশ্মীরি লঙ্কাগুঁড়ো
৬. নুন
৭. গরম মসলা
৮. ২ চামচ টক দই
৯. দু চামচ পোস্ত বাটা।
১০. কাঁচা লঙ্কা
১১. গরম মশলা গুঁড়ো

প্রণালী:

সর্বপ্রথমে পটল গুলো ভালোভাবে ধুয়ে খোসা ছাড়িয়ে মাঝখানে আধাআধি করে চিরে রাখুন। এরপর একটি ফ্রাইং প্যানে অল্প পরিমাণ সরষের তেল দিয়ে ভাল করে পটল গুলো নুন হলুদ মাখিয়ে ভেজে তুলে নিন।

এরপর একটি পাত্রে সরষের তেল গরম করে তার মধ্যে গোটা গরম মশলা এবং শুকনো লঙ্কা ফোড়ন দিয়ে দিন, তার মধ্যে একে একে করে ধনে গুঁড়ো, জিরা গুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো, কাশ্মীরি লঙ্কাগুঁড়ো দিয়ে ভালোভাবে কষিয়ে নিন, কষানো হয়ে গেলে তাতে অল্প পরিমান জল দিয়ে একটু ফুটতে দিন।

এটি ফুটে উঠলে তার মধ্যে আগে থেকে ভেজে রাখা পটলগুলো দিয়ে ভালোভাবে নাড়াচাড়া করুন। এরপর পরিমাণমতো জল এবং নুন মিষ্টি দিয়ে একটি ঢাকনা চাপা দিয়ে কিছুক্ষণ পটল সিদ্ধ হতে দিন।

এরপর একটি পাত্রে পোস্ত বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা এবং জল ঝরানো টক দই একসঙ্গে দিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এরপর ফ্রাইংপ্যানে ঢাকনা খুলে পটলগুলো, তেল ছাড়তে শুরু করলে উপর থেকে লঙ্কা, টক দই এর মিশ্রণটি ঢেলে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন কম আঁচে।

এরপর খানিকক্ষণ নাড়াচাড়া করে নামিয়ে নিন এবং গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন দই পটল। তাহলে আর দেরি না করে আজই বাড়িতে বানিয়ে নিন এই অসাধারণ নিরামিষ পদটি।

Related Articles