×
লাইফস্টাইল

দুপুরে ভাতের সঙ্গে খাবার জন্য সুস্বাদু আলু মটর কিমা, শিখে নিন রেসিপি

বিজ্ঞাপন

বেশ গরম হলেও জিভ মানতে নারাজ। সে চায় সুস্বাদু খাবার খেতে। তবে ভালো রেসিপি মানেই তো অনেক তেল, ঝাল, মশলা দেওয়া! খেলেই শরীর খারাপ। গরমের জন্যে সাথে বাড়িতে বয়স্ক এবং অসুস্থ্য মানুষদের জন্যে তেল মশলা কম খাওয়াই ভালো। মুখরোচক ভালোখাবার অথচ তেল মশলা কম খাবার সন্ধান করতে গিয়েই মিললো এক নতুন অভিনব রেসিপি। মুখরোচক অথচ তেল মশলা কম রেসিপি কিমা মটর আলু। বানানো খুবই সহজ। রান্নায় ব্যবহার করা জিনিস সীমিত এবং রোজকার ব্যবহৃত জিনিস প্রায়।

বিজ্ঞাপন

তিনশো গ্রাম মটন কিমা দিয়ে কিমা মটর আলু বানাতে লাগবে:

• ৩০০ গ্রাম মটন কিমা
• ২৫০ গ্রাম আলু টুকরো করে নেওয়া
• ৩০০ গ্রাম মটর সুটি
• তিন টেবিল চামচ সাদা/ সরষে তেল অথবা আপনার যে তেল রান্নায় ব্যাবহার করেন।
• মিডিয়াম সাইজের একটা পেঁয়াজ বাটা
• ১৫-১৬ ছোট রসুনের কোয়া
• ছোট্ট আদার টুকরো
• কাঁচা লঙ্কা
• ছোট্ট একটা টমেটোর পেস্ট
• গোটা জিরে
• তেজপাতা
• গোটা গরম মশলা
• নুন, হলুদ
• ধনে পাতা ( যদি থাকে বা পছন্দ করেন)
• গরম মশলা
এই সামান্য উপকরণ দিয়েই বানিয়ে ফেলতে পারেন মটন কিমা মটর।

প্রণালি:

প্রথমে কড়াইতে তিন টেবিল চামচ তেল দিয়ে আলু গুলো অল্প হলুদ এবং নুন দিয়ে ভেজে নিতে হবে। তারপরে আলু তুলে নিয়ে ওই তেলেই গোটা জিরে এবং তেজ পাতা দিয়ে আধা মিনিটের মত নেড়ে নিয়ে একে একে পেঁয়াজ বাটা, কাঁচা লঙ্কা বাটা, টমেটো পেস্ট, আদা রসুন বাটা দিয়ে কষিয়ে নিতে হবে।

তারপরে মশলার মধ্যে ৩০০গ্রাম কিমা দিয়ে দিতে হবে, আরো মিনিট চারেক সময় ধরে মিডিয়াম থেকে হাই ফ্লেমে কষিয়ে নিতে হবে।

তারপরে কিমা আর মশলার মিশ্রণে ৩০০ গ্রাম ছাড়ানো মটরশুঁটি এবং ভেজে রাখা আলু দিতে হবে সাথে স্বাদমত নুন। তারপরে সব কিছু আরো একবার নেড়ে চেড়ে নিয়ে জল দিতে হবে যাতে সমস্ত কিছু সেদ্ধ হয়ে যায়।

নামানোর আগে গরম মশলা দিয়ে একটু নেড়ে চেড়ে নামিয়ে নিতে হবে। তৈরী কিমা মটর আলু। চাইলে আপনি চিকেনের কিমা দিয়েও রান্নাটি করতে পারেন।

সংখ্যা গুনে বেশি মনে হলেও পরিমাণ কম মশলা এবং প্রতিটি বাড়িতে থাকে। কিমা মটর আলু আপনি সকলের জল খাবার বা রাতের ডিনারের জন্যে বানিয়ে ফেলতে পারেন। এছাড়াও বাড়িতে হুট করে লোকজন এলে কিমা থাকলেই বানিয়ে ফেলতে পারেন রেসিপিটি। অতি সুস্বাদু এই পদটি নান, লাচ্ছা পরোটা, সাধারণ পরোটা, লুচি এবং রুটির সাথে দারুন যাবে। আপনারা যদি কিমা বেশি কম করেন সেই অনুযায়ী তেল ও মশলার পরিমাণ কমবে বা বাড়বে। আর একটা জিনিস লক্ষ্য রাখবেন কিমার পরিমাণ আর ছাড়ানো মটরশুঁটির পরিমাণ সমান হলেই ভালো।

Related Articles