×
লাইফস্টাইল

গলার মেদ কমাতে চান? জোরে জোরে বলুন ইংরেজির এই দুটি অক্ষর, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

মানুষ এখন ডায়েট প্রেমি হয়ে গিয়েছেন। আর এই যাত্রায় ছেলে-মেয়ে উভয়ই ভুক্তভোগী। সবাই একেবারে প্রতিযোগীতায় নেমে পড়েছেন। সবারই একটাই লক্ষ্য যে কোনও উপায়েই শরীরের সব চর্বি ঝরিয়ে একেবারে টানটান ফিগার বানানোর। যাতে নিজেকে সুন্দর দেখানোর পাশাপাশি, নানা রোগ আক্রমণ করার আগেই পালিয়ে যায়। তবে আমাদের শরীরের মেদ শুধু পেটেই জমে না। হাতে, পায়ে, কোমরে এমনকি মুখ এবং গলাতেও মেদ জমে। যারা ডায়েট করেন, তাঁরা বরাবরই নিখুঁত চোয়াল পেতে চান। কিন্তু বয়স বাড়লেই চোয়াল এবং গলায় মেদ জমার আশঙ্কা বেড়ে যায়। আর তাতেই চোয়ালের আকৃতি বদলে যায়। এটিকে বলে Double Chin। এই অবস্থায় চোয়ালের তলার দিকে তাকালে মনে হতে পারে, যেন আর একটি মুখমণ্ডল রয়েছে পিছনের দিকে। সুতরাং এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন কী করে, জানা আছে? না জানলে দেখে নিন। তবে পেট, কোমরের থেকে গলা, চোয়াল বা মুখের মেদ কমানো সবচেয়ে কঠিন। কারণ এই এলাকার অংশে ব্যয়াম করা কঠিন। কিন্তু তবুও কয়েকটি উপায় রয়েছে, যাতে কিনা মেদও কমে যায়। দেখে নেওয়া যাক, এই উপায়গুলি কী কী।

বিজ্ঞাপন

১। ঘাড় তুলে চিবোনো: এর জন্যে প্রথমেই ঘাড় তুলে ছাদের দিকে তাকিয়ে নীচের দাঁতগুলিকে এমনভাবে নাড়াতে থাকুন, যাতে কিনা মনে হয় কিছু চিবোচ্ছেন। এরকম টা ১০ সেকেন্ড করার পরে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিয়ে ফের এই ব্যয়াম করতে থাকুন। দিনে অন্তত পাঁচবার এমনটা করুন।

২। চুমুর মতো ভঙ্গী: এছাড়াও এই অংশের চর্বি কমানোর জন্যে, গাল দু’টি দু’পাশ দিয়ে টেনে ভিতরে ঢুকিয়ে ঠোঁট দু’টি চুমু খাওয়ার মতো করুন। এতে গালের মেদ কমে। গলার পেশিতেও টান পড়ে।

৩। জিভের ব্যয়াম: এক্ষেত্রেও ঘাড়া হালকা উপর দিকে তুলে জিভটি যত দূর সম্ভব বাইরে বের করে আনুন। তার পরে জিভ দিয়ে নাক স্পর্শ করার মতো ভঙ্গীতে নিজেকে লিপ্ত করুন। এতে জিভের লাগোয়া পেশির ব্যায়াম হওয়ার দরুন মুখের মেদ কমে।

৪। প্রাণ খুলে হাসুন: মুখের মেদ কমানোর জন্য এর চেয়ে ভালো ব্যায়াম আর নেই। তাই রোজ দু’বেলা অন্তত ৫ থেকে ৭ মিনিট করে বেশি বেশি করে হাসুন। তাতে গোটা মুখের পেশির ব্যায়াম হওয়ার দরুন মুখের মেদ কমবে।

৫। দু’টি ইংরেজি অক্ষর বলুন: এক্ষেত্রে প্রথমেই কাঠঠোকরার মতো ভঙ্গী করতে হবে। এরপর একবার মাথা ধীরে ধীরে পিছন দিকে নিয়ে আবার সামনের দিকে ঝোঁকান। আর সামনে ঝোঁকানোর সময়ে জোরে বলুন ‘এক্স’ (X)। আর মাথা পিছন দিকে যখন হেলাবেন তখন জোরে জোরে বলুন ‘কিউ’ (Q)। টানা ১-২ মিনিট এটি করলেই কমবে গলার মেদ।

Related Articles