×
লাইফস্টাইল

রক্তে বেড়েছে কোলেস্টেরল? নিয়ন্ত্রণে রাখতে গ্রহণ করুন এই পাঁচটি খাবার

বিজ্ঞাপন

আমাদের সকলেরই তৈলাক্ত স্ন্যাকস যেমন, পিৎজা, বার্গার, ফ্রেঞ্চ ফ্রাই ইত্যাদি খাওয়ার খেতে বেশ পছন্দ। তবে এই ধরনের খাবার কতটা ক্ষতি করছে আমাদের শরীর তা অনেকেই জানেন না। মাঝে মাঝে ফাস্ট ফুড খাওয়া ঠিক হলেও প্রায় এই ধরনের খাবার খেলে শরীরের ক্ষতি হয় যায়। কারণ এই খাওয়ার গুলি খেলে কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দেয়, ডায়বেটিস এবং হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। সেই জন্যে আজ জানানো হবে কী কী খাওয়ার খেলে কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রণে থাকে। আসুন দেখে নেওয়া যাক:

বিজ্ঞাপন

১. ওটস:
কোলেস্টেরল কমানোর জন্য প্রধান খাবার গুলির মধ্যে একটি হল ওটস। এক বাটি ওটস ও ডালিয়ায় দ্রবণীয় ফাইবার থাকে যা আপনার এলডিএল বা খারাপ কোলেস্টেরল কমায়। এর ফলে ফলে শরীরে কম কোলেস্টেরল শোষণ হয়।

২. বিনস:
মটরশুটিতে দ্রবণীয় ফাইবার বিপুল পরিমাণে সমৃদ্ধ থাকে। এগুলো হজম হতে বেশ অনেক্ষন সময় লাগে। সেই জন্য আপনার এগুলো খাওয়ার পর অনেকক্ষণ পেট ভর্তি থাকে এবং ক্ষুধার্ত অনুভব করেন না। এই কারণে, আপনি বিনস খান ফলে সারা দিনে কম খাবেন আর যার ফলে কোলেস্টরল শরীর থেকে কমতে শুরু করবে।

৩. সাইট্রাস ফুড বা টক জাতীয় খাবার:
আপেল, আঙ্গুর, স্ট্রবেরি, কমলালেবুর জাতীয় ফলে সাইট্রাস থাকে। আর এই সাইট্রাস ফল খেলে শরীরে রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে পারে, এই সব ফলের মধ্যে পেকটিন নামক ফ্যাট থাকে যা শরীরের ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে।

৪. ফ্যাটি মাছ :
সপ্তাহে দু – তিন বার ফ্যাটি মাছ গেলে আপনার শরীর থেকে এলডিএল কমে। কারণ ফ্যাটি মাছে প্রয়োজনীয় ওমেগা ৩ থাকে। আমরা সকলেই জানি ওমেগা-৩ আমাদের রক্ত ​​প্রবাহে ট্রাইগ্লিসারাইড কমাতে সাহায্য করে এবং হার্টের অস্বাভাবিক ছন্দ রোধ করতে সাহায্য করে।

৫. সোয়া:
ডাক্তারদের মতে সারা দিনে যদি আমরা ২৫ গ্রাম সোয়া প্রোটিন গ্রহণ করি তবে শরীরে এলডিএল কমবে। সেই জন্যে সোয়া দিয়ে তৈরি সোয়াবিন, সোয়া দুধ পান করা ভালো। এর জন্যে কোলেস্টরল নিয়ন্ত্রণে থাকে।

Related Articles