×
লাইফস্টাইল

ত্বকের যৌবন ধরে রাখতে আজই ডায়েট চার্টে যোগ করুন আজ ৭টি খাবার, রইল বিস্তারিত

বিজ্ঞাপন

উজ্জ্বল এবং কোমল ত্বকের জন্য মানুষকে কত কষ্টই না করতে হয়। রুটিন মেনে নিয়মিত স্কিন কেয়ার করা, সেরা পণ্যগুলো কেনার জন্যে সেরা দোকানেরও সন্ধান খুঁজে বের করতে হয়। কিন্তু জানেন কি, আপনি যতই নিয়মিত ত্বকের ট্রিটমেন্ট করুন না কেন, ঠিক খাবার না খেলে বিশ্বের সেরা পণ্য ব্যবহারেও আপনার কোনও লাভ হবে না। কারণ শরীরে থাকা বিভিন্ন ভিটামিন ও মিনারেলের ঘাটতি ত্বকের ক্ষতি করে।তাই অভ্যন্তরীণ পুষ্টি পাওয়া খুবই দরকার। সঙ্গে যেন আপনার শরীরের হরমোনের ভারসাম্য বজায় থাকে তেমন খাবার খেতে হবে। কারণ ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া বা না পড়ার ক্ষেত্রে বেশ ভাল মতই খাবারের ভূমিকা রয়েছে। জেনে নিন ত্বক সুন্দর রাখতে নিত্যদিনের খাবারের তালিকায় কোন কোন খাবার রাখবেন:

বিজ্ঞাপন

টম্যাটো: ভিটামিন সি সমৃদ্ধ টম্যাটোতে আছে, লাইকোপিন, অ্যান্টি-এজিং অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট, যা হৃদরোগ প্রতিরোধেও সহায়তা করে। তাই টম্যাটোর স্যুপ বা স্টু করে খান, বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী।

ডার্ক চকোলেট: যাঁরা চকোলেট খেতে ভালোবাসেন তাঁদের জন্য খুব ভালো খবর। কারণ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডার্ক চকোলেট বয়স ধরে রাখতে সাহায্য করে। এটিতে রয়েছে পলিফেনল, ফ্ল্যাভানল এবং অন্যান্য অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাদ্য, যা ত্বককে সূর্যের ক্ষতি থেকে রক্ষা করে এবং অকালে বার্ধক্য থেকে বাঁচার।

দারচিনি: যাঁদের তৈলাক্ত ত্বক, তাঁদের জন্য দারচিনি দুর্দান্ত কার্যকরী। তাঁরা অবশ্যই চা, কফি, স্মুদ ডেজার্টের সঙ্গে দারচিনি মিশিয়ে খান। এটা রক্তে শর্করার মাত্রাকে স্থিতিশীল করতে সাহায্য করে।

চিয়া বীজ: চিয়া বীজ হল ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের সবচেয়ে সমৃদ্ধ উৎস এবং নতুন কোলাজেন উৎপাদনের জন্য এটি ত্বক কোমল রাখে এবং বলিরেখা মুক্ত থাকে।

আদা: অনেকে ফেসিয়াল উপাদানে আদা দেন। কারণ আদায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি থাকে, যা ত্বকের পক্ষে খুব উপকারী।

অ্যাভোকাডো: ত্বক সতেজ রাখতে অ্যাভোকাডোর কোনও বিকল্প নেই। অ্যাভোক্যাডোয় প্রচুর পরিমাণে স্বাস্থ্যকর ফ্যাট আছে, যা ব্যবহার করলে ত্বক হয়ে ওঠে মোলায়েম ও আর্দ্র।

ফ্ল্যাক্স সিড: এই বীজ স্বাস্থের পক্ষে খুবই উপকারী। এতে রয়েছে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড এবং লিগন্যান্স যা ত্বককে হাইড্রেটেড এবং মসৃণ রাখার পক্ষে অত্যন্ত সহায়ক।

Related Articles