×
বিনোদন

পুড়ে ছাই এক্সিবিশন, খড়ি কি পারবে নিজের হাতে ঋদ্ধির স্বপ্নের এক্সিবিশনকে আবারও আগের মতো রাঙিয়ে দিতে?

বিজ্ঞাপন

ফের চোখে চোখ, হাতে হাত, রোমান্সেল পালা খড়ি-ঋদ্ধির।জমে উঠছে স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘গাঁটছড়া’ (Gantchhora)। টিআরপির সিংহাসন চ্যুত হলেও এই ধারাবাহিকের খ্যাতি একচুলও হারায় নি। বরং দিনের পর দিন এই ধারাবাহিকে একের পর এক টুইস্ট ঢুকেই চলেছে।

বিজ্ঞাপন

টিআরপির সিংহাসন উঠতে না পারলেও এই ধারাবাহিক চলতি সপ্তাহে দ্বিতীয়ত পজিশনে রয়েছে। যাই হোক এবার আসি আলোচ্যে। দ্যুতি-রাহুলের সম্পর্কে ঠিক করতে খড়ির জুড়ি মেলা ভার ছিল। দিদিকে তো বিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু তাঁর লোভী দিদি সিংহরায় বাড়িতে ঢোকার জন্যে একপ্রকার মিথ্যে গল্প সাজিয়েছিলেন।মিথ্যে প্রেগন্যান্সির নাটক করেছিলেন।

তবে এখন সব জানাজানি হয়ে গিয়েছে, আর সবার ধারণা দ্যুতির এই মিথ্যে নাটকের পিছনে খড়ির কাজসাজি আছে। সেই কারণে সিংহরায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায় খড়ি। অন্যদিকে ঋদ্ধিমান অনেকবার খড়িকে ফিরিয়ে আনতে চাইলেও সে রাজি হয় না। এদিকে ঋদ্ধিমানের শয়তান ভাই রাহুল খড়ির উপর প্রতিশোধ তোলার জন্যে তাঁর দশকর্মার দোকানও গুন্ডা দিয়ে গুড়িয়ে দেয়। আর অন্যদিকে ঋদ্ধিমানের স্বপ্নের এক্সিভিশনে কায়দা করে আগুন লাগিয়ে দেয়।

আর এই আগুনে পুরো ধ্বংস হয়ে যায় ঋদ্ধিমানের সাধের প্রজেক্ট। আর এই খবর পাওয়া মাত্র খড়ি ছুটে আসে স্বামীর কাছে। এসে এই ধ্বংসাবশেষকে ঠিক করার দায়িত্ব খড়ি একা হাতে নিয়ে নেয়, কিন্তু ঋদ্ধিমানের মেজাজ যেন কিছুতেই কমে না। সে খড়িই উপর চেঁচাতে শুরু করে, শুধু তাই নয় কর্মচারীদের ওপরেও চেল্লাতে শুরু করে তাড়াতাড়ি কাজ শেষের জন্যে। এদিকে স্বামীর এই বিপদে খড়ি নিজেও ঝাঁপিয়ে পড়েছে, সে ঝাটা নিয়ে সেই জায়গা পরিষ্কার করছে আর মুখে মুখে বলছে, ‘এত রাগ কোথা থেকে আসে ওনার কে জানে। কি কুক্ষণে যে ওনার সঙ্গে আমার বিয়ে হয়েছিল তা একমাত্র ভগবান জানে। আর এই কথা বলতে বলতেই ঋদ্ধিমান গড়গড় করে হেঁটে খড়ির কাছে গিয়ে তাঁর হাত ধরে। শুরু হয় ফের দেখাদেখি রোমান্সের পালা।

Related Articles