×
বিনোদন

সকলের সামনে বরফিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল টিপু, বরের কান্ড দেখে লজ্জায় লাল ধিঙ্গী

বিজ্ঞাপন

অবশেষে সংসারের দায়িত্ব বরফিকে বুঝিয়ে দিয়ে নিজের বাবাকে নিয়ে চেন্নাই রওনা দিয়েছে সহচরী। তবে সেই জন্যে তো থেমে নেই বধূ বরণের আচার অনুষ্ঠান। বাড়ির লোকের সাথে সামিল রয়েছে বরফির বাবা অর্থাৎ সমরেশ সেনগুপ্ত। তবে নতুন বউ কী ভাবে করবে সব আচার অনুষ্ঠান? কারণ বরফি তো হুইল চেয়ারে। সেই জন্যে টিপু সবার সামনে বললো এমন কথা, বরফি সহ বাড়ির সবাই লজ্জায় লাল। আসুন দেখে নেওয়া যাক টিপু – বরফির আগামী জীবনের প্রারম্ভ হওয়ার ঘটনা।

বিজ্ঞাপন

সুজাতার আসল চেহারা সবার সামনে এনে একই মণ্ডপে আবার টিপুকে বিয়ে করলো বরফি। তবে এই বারে টিপুর সম্মতিতে এবং সব বিধি মেনে। বাড়ির সকলেও বেশ খুশি, বিশেষ করে সমরেশ – সহচরী। হুইল চেয়ারে বসে বিয়ে থেকে গৃহ প্রবেশ সব সম্পূর্ন হয়েছে। সাথে দেখা গেছে বরফি আর টিপুর চোখে একে অপরের প্রতি ভালোবাসা। যা পড়েছে সকলের চোখে। সাথে দর্শকও বেশ খুশি।

বিয়ের শেষে টিপু আর বরফি বাড়িতে আসার পর ছেলে আর বৌমাকে বরণ করার পর সবাইকে বাবাকে নিয়ে চিকিৎসা করতে চেন্নাই যাবার কথা জানিয়ে দেয় সই। তারপরে দেখা গেছে বাড়ির সকলের সামনে বাড়ির চাবি বরফির হাতে তুলে দিয়ে সংসারের দায়িত্ব নিতে বলে। এরপরে সহচরীর সাথে সমরেশ যেতে চাইলে সহচরী বাঁধা দিয়ে বলে, ‘তোমাকে তোমার মেয়ে মানে বরফির পাশে থাকতে হবে। দুজন মিলে চলে গেলে ও একা পারবে না যে!’

প্রোমো ভিডিওতে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে বধূ বরণের সময় ল্যাটা মাছ ধরার আচার অনুষ্ঠানে বরফির বদলে টিপু ল্যাটা মাছ ধরবে বলে জানায়। টিপু বলে, বরফির যা অবস্থা তাতে সে ল্যাটা মাছ ধরতে পারবে না। সেই জন্যেই সে মাছ ধরবে। এই কথা শুনে বরফি লজ্জা পেয়ে যায়। অন্যদিকে বাড়ির সবাই বেশ খুশি হয়ে যায়। তারপরে নানান চেষ্টার পর ল্যাটা মাছ ধরতে সক্ষম হয় টিপু।

Related Articles