×
বিনোদন

শ্যামা মায়ের সামনে দাঁড়িয়ে ভালোবাসার শপথ নিলো সূর্য ও দীপা, রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

এবার একসঙ্গে ভালোবেসে সমস্ত বিপদ থেকে একে অপরকে রক্ষা করবে এবং তাঁদের মাঝখানে তৃতীয় ব্যক্তিকে ঢুকতে দেবেন না এই শপথ নিলেন সূর্য-দীপা। স্টার জলসার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ (Anurager Chhowa)। সূর্য-দীপার রসায়নে এক্কেবারে বুঁদ দর্শকমহল। এদিকে কিছুদিন আগেই গুজব উঠেছিল যে এই ধারাবাহিক শেষ হতে চলেছে, কিন্তু দর্শকদের সেই ধারণা গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছেন এই ধারাবাহিকের নির্মাতা থেকে কলাকুশলীরা। এরকম একটা টাটকা রসালো ধারাবাহিক এত তাড়াতাড়ি কি করে শেষ হয়, সেই নিয়েও চিন্তিত ছিলেন দর্শকমহল।

বিজ্ঞাপন

আসলে এই ধারাবাহিক শুরু থেকেই দর্শকদের কাছে দারুণ জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। টিআরপির তালিকাতেও ভালমতন নিজেদের জায়গা পরিপোক্ত করেছে এই ধারাবাহিক। দীপা-সূর্যর রসায়ন যেন একেবারে জমে ক্ষীর। দীপা-সূর্যর বিয়ে হয়েছে অনেকদিন হল, এদিকে দীপার শাশুড়ি এখনও মানেননি দীপাকে, তাঁর দাবি দীপা কালো এবং তাঁর ছেলের যোগ্য নয়। তবে একদিন না একদিন লাবণ্য মেনেই নেবে বলে বিশ্বাস করেন দীপা। কারণ তাঁর স্বামী সূর্য বরাবরই তাঁর পাশে আছেন।

এদিকে দীপার এখন শত্রু তাঁর শাশুড়িমা, তাঁর সৎ বোন, সৎ মা, সৎ দিদা এবং সূর্যর ডাক্তার বন্ধু মিশকা। এই নিয়ে নানারকম কান্ড ঘটে গিয়েছে সূর্য-দীপার জীবনে। বিয়ের পর থেকেই একের পর এক দিক দিয়ে ফেঁসে যাচ্ছে দীপা। কখনও শাশুড়ির কোপের মুখে পড়ছেন তো কোনো সৎ বোন ঊর্মি তাঁর জীবন তছনছ করতে উঠে পড়ে লেগেছে। এদিকে আবার মিশকাও তাঁদের বাড়ির সম্পত্তি লুটে-পুটে নেওয়ার জন্যে প্রস্তুত। সে ইতিমধ্যেই ঊর্মির দিদাকে পটিয়ে ফেলেছেন। এবং দীপাও বুঝে গিয়েছে।

তার মধ্যে কিছুদিন আগেই প্রোমোতে উঠে এসেছিল যে, মিশকা ভুল রিপোর্ট বানিয়ে দীপাকে জানায় যে সে কোনোদিনও মা হতে পারবে না। এরপরে স্বাভাবিকভাবেই দীপার মন ভেঙে যায়, কারণ তাঁর পক্ষে একটাই রাস্তা খোলা ছিল। তাঁর ধারনা ছিল এই সন্তানের মাধ্যমেই দীপার শাশুড়ি মায়ের সঙ্গে তাঁর চিরকালীন বনিবনা হয়ে যাবে। এদিকে নতুন এই ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো বলছে, সূর্য-দীপার মধ্যে সব মান-অভিমান মিটে গিয়েছে। দীপা ও সূর্য একই সঙ্গে মা-কালির মন্দিরে গিয়ে একই সঙ্গে প্রদীপ নিয়ে কতকগুলি শপথ করলেন, বললেন তাঁরা দুজনেই একে অপরকে সমস্ত বিপদ থেকে রক্ষা করবেন। তাঁদের মাঝে কোনও দিনও কোনো তৃতীয় ব্যক্তিকে আসতে দেবেন না। সব সময় নিজেদের প্রিয় বিশ্বাস রাখবেন, একটুও হেরে যাবেন না তাঁরা। এই ভাবে মা-কালীর সামনে প্রতিজ্ঞা করে জলে ভাসিয়ে দিলেন প্রদীপ।

Related Articles