×
বিনোদন

শারীরিক কষ্ট নিয়েও গান গেয়ে মাতিয়েছিলেন দর্শকদের মন, প্রকাশ্যে এল কেকের শেষ স্টেজ পারফরম্যান্স

বিজ্ঞাপন

‘হাম রাহে ইয়া না রাহে কাল’ (Hum Rahe Ya Na Rahe Kal) গানটি দিয়েই শেষ হল কেকে’র (KK) জীবন যাত্রা। বলিউডে ২৬ বছরের কেরিয়ার এক মুহূর্তে শেষ। গত দু দিন ধরেই কলকাতায় ছিলেন গায়ক, কলকাতার দুটো কলেজের সোশ্যালে তাঁর লাইভ কনসার্ট ছিল, সোমবার একটা কনসার্ট সেরেছেন। এবং গত মঙ্গলবার ছিল তাঁর স্যার গুরুদাস কলেজের সোশ্যাল উপলক্ষ্যে লাইভ অনুষ্ঠান, যা হয়েছিল নজরুল মঞ্চে। সন্ধ্যে ঠিক ৬ তা ৪৫ নাগাদ তাঁর এন্ট্রি হয় মঞ্চে, তাঁকে দেখতে ভক্তদের ভিড় এক্কেবারে উপচে পড়ছিল। ভক্তদের লাগামছাড়া ভিড়ই যেন কাল হয়ে গেল, এত ভিড়, যে হলে আড়াই হাজার দর্শকের ঠিকঠাক জায়গা হয় না, সেই হলেই সেদিন জায়গা করে নিয়েছিল প্রায় ৭ হাজার মানুষ।

বিজ্ঞাপন

তাতেই হলের এসি কার্যকর হওয়া বন্ধ হয়ে গিয়েছিল, মঞ্চে গাইতে গাইতেই অসুস্থ বোধ করেন গায়ক। বারবার রুমাল দিয়ে ঘাম মুছতে থাকেন গায়ক। এমনকী অস্বস্তি বোধ করায় তিনি স্পটলাইট, ক্যামেরা সব বন্ধ করতে বলেছিলেন। কিন্তু কিছুতেই তাঁর কথা উদ্যোক্তাদের কানে পৌঁছয়নি। অতএব শো শেষ হওয়ার পর পরই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন হোটেলে গিয়েই মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মারা যান গায়ক, তাঁর মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে যেন বলিউডের একটা যুগের অবসান হল। ৯০ দশকের মানুষের কাছে কেকে-র গান আলাদাই মাত্রা এনে দিত, বিশেষ করে ইমরান হাশমিরের কন্ঠে কেকের গান একটা অনবদ্য সংমিশ্রণ। তাঁর মৃত্যু অস্বাভাবিক বলেও দাবি করেন অনেকে।

এর জন্যে নিউ মার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয় ওর শোয়ের অর্গানাইজারদের বিরুদ্ধে। তবে ময়না তদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে তাঁর মৃত্যু হার্ট অ্যাটাক জনিত কারণেই ঘটেছে। গত বুধবার গান স্যালুটের মাধ্যমে কেকে-কে বিদায় জানানো হয়। মুম্বইতেই হয়েছে তাঁর শেষ কৃত্য। তবে কেকের লাস্ট পারফরম্যান্সের ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় মাধ্যমে দারুণ ভাইরাল হয়েছে। যেখানে দেখা গিয়েছে, তিনি এই অনুষ্ঠান শেষ করেছেন তাঁরই কন্ঠের গান ‘হাম রাহে ইয়া না রাহে কাল’ গানটি দিয়ে। এই গানের মাধ্যমেই যেন তিনি বুঝিয়ে দিয়ে গেলেন, আমি কালকে থাকব না কিন্তু আমার স্মৃতির মাধ্যমে আমাকে সবাই স্মরণ করবে।

হিন্দি বাংলা মিলিয়ে মোট ৯ টি ভাষায় ৫০০ এর বেশি গান গেয়েছেন তিনি তাঁর গোটা ২৬ বছরের কেরিয়ারে, পেয়েছেন একাধিক পুরস্কার। কিন্তু আজ যেন সব থমকে গেল। গত মঙ্গলবার পর্যন্ত যিনি তাঁর ভক্তদের আনন্দ দিয়ে দিয়েছেন আজ তিনি আকাশের তাঁরা হয়ে গিয়েছেন। হয়তো এটিই ছিল তাঁর ভবিতব্য যে মাত্র ৫৩ বছর বয়সেই তিনি মারা যাবেন, কিন্তু নিজের শহরে নয়। ভিন শহরে।

Related Articles