×
বিনোদন

অসাধারন গানে ‘সারেগামাপা’-র মঞ্চ মাতালেন দীপ, প্রশংসা বিচারকদের, রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

শুরু হয়েছে বহু প্রতীক্ষিত গানের রিয়ালিটি শো ‘সারেগামাপা’ বাংলা। মেগা অডিশনের পরে শুরু হয়েছে মূল পর্বের যাত্রা। শনি – রবিবার দিন যে প্রতিযোগী মূল পর্বে গান গাওয়ার সুযোগ পেয়েছে তাদের সকলের গান শোনা গেছে দু দিনে। ক্লাসিক্যাল, সেমি ক্লাসিক্যাল, রক মিউজিক, আধুনিক গান থেকে লোকগীতি সব গান শুনতে পাওয়া গেছে এই দুদিন। তারমধ্যে বাঁকুড়ার এক যুবকের গান বিচারক থেকে দর্শকদের সকলের মন মাতিয়ে দিয়েছে। আসুন যুবকের গানের এক ঝলক দেখে নেওয়া যাক।

বিজ্ঞাপন

গ্রাউন্ড অডিশনের প্রতিযোগীদের গান শুনতে না পাওয়া গেলেও গ্র্যান্ড অডিশনের প্রতিটি প্রতিযোগীদের গান আমরা শুনতে পেয়েছি। কেবল প্রতিযোগীদের নয় সুযোগ্য প্রতিযোগী খুঁজতে বিচারকদের দিতে হয়েছে পরীক্ষা। বিচার বিবেচনা করে অধিকবার সুযোগ দিয়ে মূল পর্বের জন্যে এক এক জন প্রতিযোগীকে রাখা হয়েছে। তার সাথে গানের সেলিব্রেশনে বাছাই করা হয়েছে ৪ জন খুদে। যারা গান গাইবে তবে প্রতিযোগিতায় থাকবে না।

এর আগে আমরা পাহাড়ি ছেলে অ্যালবার্ট-এর কথা আলোচনা করেছি। গান না শিখে কিভাবে সে এত বড়ো মঞ্চে যোগ দিয়েছে সেই সব কথা আপনাদের সাথে ভাগ করে নিয়েছি। তারপরে দেখছি সদ্য বিবাহিত একজন শ্বশুর বাড়ির উৎসাহে ‘সারেগামাপা’ মঞ্চে গান গাইতে এসেছে। এছাড়াও দেখেছি বিস্ময় বালক স্বর্ণাভকে। এর সাথে যার নাম না নিলেই না সে হলো বাঁকুড়ার মেজিয়া নামক ছোট্ট জায়গা থেকে আসা দীপের কথা।

বৈষ্ণব পরিবারের ছেলে দীপ। ছোটবেলা থেকেই গান শুনে বড়ো হয়ে ওঠা। পেশা আর নেশা দুই হলো গান। দীপ বাংলা লোকগীতি এবং কীর্তনের মধ্য দিয়ে সকলের মন জয় করে নিতে চায়। এই কাজে মাও আছেন ছেলের সাথে। গ্র্যান্ড প্রিমিয়ারে ‘নিতাই চাঁদের দরবারে’ গানটি গেয়ে সকলের মন জয় করে নিয়েছে দীপ। সাথে জানিয়েছে এক ক্যাসেট কোম্পানিতে কাজ শুরু করে ছিলেন দীপ এরপরে কষ্ট করে নিজের গান চালিয়ে রেখে আর এত বড়ো মঞ্চে দাড়িয়ে।

Related Articles