×
বিনোদন

পিহুর বিয়ের কার্ড দেখে হাঁ ঋষি, কি এমন লেখা আছে তাতে? রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

একই পিহুকে তুলে নিয়ে গিয়েও শেষ অব্দি বিয়েটা করতে পারলো না ঋষি! আসলে মন্দিরে বিয়ে করতে তো পিহু রাজি ছিলো না। তার উপরে মন্দিরে পৌঁছে গেছিলো পিহুর হবু বর। বেশ তারপরে হবু বরের সাথে বাড়ি ফিরে এলো পিহু। এখানেই শেষ নয় এরপরে দুজন মিলে ঋষিকে বিয়ের কার্ড দিচ্ছে বিয়ের দিন। এই সব কান্ড কী মেনে নেওয়া যায়? এরপরে কার্ড দেখে ঋষি চমকে উঠলো। সমস্ত ঘটনা বুঝতে অসুবিধা হচ্ছে তাই না! সেই জন্যেই বলছি প্রোমো ভিডিওটি দেখেই ফেলুন।

বিজ্ঞাপন

স্টার জলসার মেগা সিরিয়াল ‘মন ফাগুন’ (Mon Phagun) বর্তমানে হয়ে উঠেছে বেশ মজার। এরসাথে এতে রয়েছে নানান রোমাঞ্চ। একদিকে যেমন পিহু চায় না ঋষিকে বিয়ে করতে। অন্য দিকে সৌমেন সামনে এসে বলেছে সে নিজের সন্তান আর রুশার জন্যে নিজের দিদিকে ধরিয়ে দেবে সাত দিনে। অর্থাৎ যেমন চলছে হাসির ফোয়ারা তেমনি রয়েছে জানার চিন্তা। এরম মাঝে বিয়ের মণ্ডপ থেকে পিহুকে তুলে নিয়ে গিয়ে সিঁদুর পরাবে এমন সময় পড়েছে বাঁধা।

আমরা সকলেই জানি বিয়ের দিন জোর করে পিহুকে তুলে নিয়ে গেছিলো ঋষি। সৌমি আর তানি এই কাজে নিজের দাদাকে সাহায্যও করেছিলো। এও দেখেছি পিহু ঋষিকে কামড়েও দিয়েছে। এরপরে মন্দিরে গিয়ে বিয়েও প্রায় শেষের মুহূর্তে। মানে যখন মাথায় সিঁদুর উঠতে যাবে এমন সময় পিহুর হবু বর গিয়ে হাজির। বেশ বন্ধ হয়ে গেলো বিয়ে।

নতুন প্রোমোতে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে পিহুর বিলেত ফেরত হবু বর পিহুকে বলছে, ‘তোমার বিয়ের কার্ড তুমি মিস্টার সেনকে দাওনি! কার্ডটা তো প্রথমে উনাকেই দেওয়া উচিৎ ছিল।’ এই বলার পর বিয়ের কার্ড হাতে দিলেও দেখতে চায় না ঋষি। রাগে কষ্টে সে ছুঁড়ে ফেলে দেবে এমন সময় রুশা কার্ডটা নিজের হাতে নিয়ে ঋষিকে দেখিয়ে বলে, ‘আরে ছোট বেলার প্রিয় বন্ধু প্রিয়দর্শিনীর বিয়ের কার্ডটা দেখ ভাই।’ বেশ এর পরে বিয়ের কার্ড হাতে নিয়ে চমকে উঠলো ঋষি।

Related Articles