×
বিনোদন

শাড়ি পরতে গিয়ে ক্ষতস্থানে ব্যথা পেল পিহু, অবশেষে নিজের হতে প্রিয়দর্শিনীকে কাপড় পরালো ঋষি, রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

স্টার জলসার অন্যতম ধারাবাহিক ‘মন ফাগুন’ (Mon Phaugun)। শুরুতে এই ধারাবাহিক তেমন ধামাকা সৃষ্টি করতে না পারলেও এখন এই ধারাবাহিকে চলছে একের পর এক ধামাকাদার পারফরম্যান্স। সঙ্গে পিহু-ঋষির জমজমাটি রসায়ন, একের পর এক টুইস্ট সবটা দিয়েই এই ধারাবাহিক যেন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে দিনের পর দিন। ছোটবেলার বন্ধু ছিলেন পিহু-ঋষি। কিন্তু তাঁরা একটি দুর্ঘটনায় ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

বড় বেলায় তাঁরা একে অপরকে না চিনতে পারলেও ভাগ্যের ফেরে বিয়ে হয়ে যায় তাঁদের। তবে বিয়ের পর পরেই নিজেদের ছোট্ট পরিচয় পান পিহু-ঋষি। তারপর কাহিনী অনেকটাই ঘুরে যায়, ঋষির জীবনে নকল প্রিয়দর্শিনী আসে। এই নিয়ে অনেক কান্ড-কারখানা হয়, শেষে পিহু-ঋষির মিল হয়। কিন্তু তাতেও ঝামেলা যায়না, পিহু-ঋষির জীবন থেকে। কারণ, এরই মধ্যে পিহু জানতে পেরে যায় যে, তাঁর বাবা-মাকে যারা খুন করেছিল, অর্থাৎ ঋষির বাবা অপ্রতিম সেন শর্মা।

সেই কথা ঋষি জানেন। পিহু যা শুনে হতবাক হয়ে যায়, এমনকী ঋষিও তা স্বীকার করে। ঠিক সেই সময়ে পিহু নিজেকে শেষ করতে চাইলে, ঋষির দিকে সৌমেন গুলি করছে দেখে ঋষিকে বাঁচাতে গিয়ে পিহুর পেটে গুলি লেগে যায়। সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। কিন্তু ভাগ্যের জোরে বেঁচে যায় পিহু, গুলিতে পাশ কাটিয়ে বেরিয়ে যায় পিহুর।

তাই সামান্য আহত হয় তিনি। কিন্তু এই অবস্থায় শাড়ী বদলাবেন কি করে পিহু, অগত্যা ঋষিই শাড়ী পড়িয়ে দিলেন পিহুকে। ফের কি ভালোবাসা জন্মাবে ঋষি-পিহুর! সেটাই এবার দেখার বিষয়! এদিকে পিহুর বাবা-মায়ের খুনিকে খুঁজতে ঋষিও তাঁকে সাহায্যে করবে কিনা সেটাও দেখার বিষয়। সুতরাং কাহিনী এখন এক্কেবারে ফুরফুরে মেজাজে।তাই টিআরপির সেরা দশে জায়গা না করা ছাড়া তার কোনো উপায় নেই।

Related Articles