×
বিনোদন

সৌমেনের গুলি থেকে ঋষিকে বাঁচাতে গিয়ে আহত পিহু, রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

ঋষিকে বাঁচাতে গিয়ে গুলি লেগে মাটিতে লুটিয়ে পড়লেন পিহু! এরপর কী হবে! স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘মন ফাগুন’ (Mon Phagun)। টিআরপির সেরা দশে প্রতি সপ্তাহেই নিজের জায়গা রাখে এই ধারাবাহিক। হবে নাই বা কেন, এই ধারাবাহিকের মুচমুচে টুইস্ট, নায়ক-নায়িকার অসাধারণ কেমিস্ট্রি সবেতেই জনতা জনার্ধন এক্কেবারে বুঁদ হয়ে থাকে।

বিজ্ঞাপন

ঋষি-পিহু দুজনেই ছোটবেলার বন্ধু, কিন্তু একটি দুর্ঘটনায় দুজনেই আলাদা হয়ে যায়। তবে বড় হয়ে দুজনের সঙ্গে দেখা হয় এমনকী বিয়েও হয় কিন্তু, তাঁরাই যে ছোটবেলার বন্ধু তা জানতে অনেকটাই সময় লেগে যায় ঋষি-পিহুর। এদিকে দুজনের মধ্যেই ভালোবাসা ভরপুর। অনেকেই ঋষি-পিহুকে আলাদা করতে চাইলেও শেষমেশ তাঁরা দুটিতে ঠিক এক হয়েই ছেড়েছে।

এমনকী কিছুদিন আগেই নকল প্রিয়দর্শিনী সেজে মিলি তাঁদের জীবনে এলেও সত্যিটা খুব তাড়াতাড়ি প্রমাণ হয়ে যায়। কিন্তু এখন চলছে ধারাবাহিকের টানটান উত্তেজনাকর পর্ব।আসলে পিহুর বাবা-মাকে ছোটবেলায় ব্যবসার লোভে পড়ে হত্যা করেছিলেন ঋষির বাবা অপ্রতিম সেন। সেই ঘটনা ঋষি জানতেন, এমনকী তাঁর বাবা যে বেঁচে আছেন সেটাও তিনি জানতেন।

কিন্তু পিহু হন্যে হয়ে তাঁর বাবা-মায়ের খুনীকে খুঁজতে থাকলেও সে এই উত্তর খুঁজে পায়নি। এদিকে ঋষির সঙ্গে একাধিকবার অপ্রতিম সেনের দেখা হলেও ঋষি কিছুতেই তাঁকে বিশ্বাস করাতে চায়না যে তাঁর বাবা বেঁচে আছে। এদিকে ঋষি সবকিছুই জানত। তবে সম্প্রতি মণিকা এবং মিলি সব কথা জানিয়ে দেয় পিহুকে। যে ঋষি সব জানে, তাঁর বাবাকে কে খুন করেছে, অপ্রতিম সেন বেঁচে আছেন কিনা সব! এরপর পিহু ঋষিকে সব কথা জিজ্ঞাসা করেন, যে তিনি সত্যই সবটা জানতেন কিনা আগের থেকে!

তাও কেন তিনি তাঁকে মন ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। এই প্রশ্নের সব উত্তর দেয় ঋষি। সে বলে হ্যাঁ তিনি সবটাই জানতেন। প্রিয়দর্শিনীকে হারাতে চান নি বলে এতদিন কিছুই বলেন নি। এবার পিহুর সিদ্ধান্ত নিয়ে নেয় যে, সে নিজেই মরে যাবে। বন্দুক নিয়ে গুলি করতে যাবেন প্রিয়দর্শিনী তখনই তিনি দেখেন তাঁদের শত্রু সৌমেন ঋষিকে গুলি করছে। তখনই পিহু ঋষিকে সরিয়ে দেয় এবং গুলি তাঁর গায়ে লেগে যায়। মাটিতে লুটিয়ে পরে পিহু। এরপর কী হবে, দেখার জন্যে অবশ্যই চোখ রাখতে হবে মন ফাগুন ধারাবাহিকের প্রতিটি এপিসোডের উপর।

Related Articles