×
বিনোদন

ক্যাপ ফাটানোর বন্দুক দিয়ে কিডন্যাপারকে তাড়ালেন লক্ষ্মী কাকিমা, হেঁসে খুন দর্শকরা, রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

একদিকে দর্শক যেমন বলছেন লক্ষ্মী কাকিমা সব পারে। তেমন অন্যদিকে তারাই বলছে এটা হতেই পারে না গুন্ডা না হলে এমন করে ধোঁকা খাবে! বুঝতে পারবে না আসল নকলের মধ্যে তফাৎ। তবে যে যাই বলুক লক্ষ্মী কাকিমার ফ্যানরা খুব খুশি এটা দেখা যে, বৌমাকে বাঁচাতে নিজের প্রাণের কথাও ভাবেনি। ঝাঁপিয়ে পড়ে হাঁসকে বাঁচিয়ে এখন সকলের প্রিয় লক্ষ্মী কাকিমা। আসুন দেখে নেওয়া যাক কীভাবে লক্ষ্মী কাকিমা হাঁসের কিডন্যাপ হওয়া রক্ষা করলেন।

বিজ্ঞাপন

বাড়ি বিক্রি করতে দুলালের মেজো কাকা হাঁসের বাবার সাথে হাত মিলিয়ে লক্ষ্মী কাকিমা আর তার পরিবারকে বাড়ি ছাড়া করেছে। তবে মেজো কাকার সাথে লক্ষ্মী কাকিমার বড়ো ছেলের বউ যুক্ত, সেই জন্যে সে তার বরকে নিয়ে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসেনি। নিজের বাড়ি বাঁচাতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেলেও নিজের শ্বশুরের ভিটে রক্ষা করছে।

নিজের বড়ো দাদার নামে মায়ের অপারেশনের টাকা দিয়ে ফ্ল্যাট কেনার অপবাদ দিয়ে ঘর ছাড়া করেছে মাকে দিয়ে। অবাক করার ব্যাপার হলো লক্ষ্মী কাকিমার শাশুড়ি মা মেজো ছেলের সব কথা বিশ্বাস করেও নিয়েছে। ভাড়া বাড়িতে থেকে সকলেই কিছু না কিছু কাজের চেষ্টা করছে। হংশিনী অর্থাৎ হাঁসের চাকরি খোঁজার চেষ্টার কথা শুনে তার বড় দা প্ল্যান করেছে নিজের বোনকে কিডন্যাপ করার।

গুন্ডাদের হাঁসকে নিয়ে যেতে দেখে লক্ষ্মী কাকিমা এগিয়ে আসে, তাকে দেখে গুন্ডারা হাতের পিস্তল তার দিকে তাক করে। এমন সময় নকল পিস্তল দেখিয়ে ভয় দেখায় সে। তারপরে তাদের বেধড়োপ পিটিয়ে এবং ক্যাপ ফাটিয়ে ভয় দেখিয়ে হাঁসকে উদ্ধার করে সকলের লক্ষ্মী কাকিমা। এই জন্যেই তো সকলে তাকে সুপারস্টার বলে, সকলের প্রিয় লক্ষ্মী কাকিমা সুপারস্টার।

Related Articles