×
বিনোদন

দাদুর বুদ্ধিতে এবার সিংহরায় বাড়িতে হবে তিন জোড়া হানিমুন, তবে কি এবার ভাঙা সম্পর্কে লাগবে জোড়া?

বিজ্ঞাপন

যেখানে বাড়ি আর ব্যবসা সব জায়গায় সব কিছুই ঠিক নেই সেখানে ঝামেলা তো হবেই। তার উপরে কুণাল – বনির বিয়ের পর থেকেই খড়ি – ঋদ্ধি আর রাহুল – দ্যুতির সম্পর্কে বেড়েছে দূরত্ব। সেই খবর সিংহ রায় বাড়ির সদস্য থেকে দর্শক সকলেই জানেন। এমন ভাবে সবাইকে আলাদা দেখতে ভালো লাগছে না বলেই দাদু করলেন একটা প্ল্যান। যেটা শুনে দর্শক তো খুশি হয়েছে, তবে লজ্জায় লাল হয়েছেন ঠাম্মি। কী বুঝতে পারছেন না তো? ওত তাড়া কিসের সব বুঝবেন আসতে আসতে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে ছোট পিসেমশাই আর রাহুলের জন্যেই বনি আর কুণালের বিয়ে দিতে বাধ্য হওয়ার কথা সিংহ রায় বাড়ির অনেকেই বুঝতে পারলেও কুণালের মা আর ঋদ্ধি আঙ্গুল তুলেছে খড়ির দিকে। সেই জন্যেই তাদের সম্পর্কে দেখা দিয়েছে দূরত্ব। অন্যদিকে এই প্রথম দ্যুতি নিজের বোন খড়ির পাশে দাঁড়ানোর জন্যে রাহুলের সাথে দূরত্ব বেড়েছে তাদের মধ্যেও। অন্য দিকে নব দম্পতি হলেও কুণাল – বনির মাঝেও চলছে রাগ – অভিমান।

তবে সব থেকে বেশি কষ্ট পাচ্ছে খড়ি। নিজের বোনকে সিংহ রায় বাড়িতে বউ করে আনার জন্যে প্রতি পদে অপমানের সাথে কষ্ট দিচ্ছে ঋদ্ধি। এমন কী কাঁচের উপর থেকেও হেঁটে যেতে হয়েছে খড়িকে। এরপরে ঋদ্ধির জন্যেই বারে গিয়ে অপমানিত হতে হয়। তবে ঋদ্ধি আর খড়ির মধ্যে একে অপরের প্রতি দায়িত্ব আর ভালোবাসা একদম শেষ হয়ে যায়নি। অন্যদিকে বনিকে ভালোবাসলেও নানান কারণে তাকে অপমান করছে কুণাল। সব কিছুই চোখে পড়েছে সকলের। সেই জন্যেই দাদু ঠিক করেছে তিন জোড়া মধু চন্দ্রিমা একসাথে হবে।

শেয়ার করা প্রোমো ভিডিওতে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে, দাদু বলছেন তিন জোড়া মধু চন্দ্রিমা হবে সমুদ্র সৈকতে। এই কথা শুনে ঠাম্মির চোখে – মুখে লজ্জা। একদিকে যেখানে ঋদ্ধির মুখে মধু নেই সেই জন্যে মধু চন্দ্রিমা করতে যেতে চায় না খড়ি। আর সেই কথা শুনে আলাদা ঘরে থাকার প্ল্যান করছে খড়ি – ঋদ্ধি। অন্যদিকে দ্যুতির প্ল্যান শপিং আর বিচ পার্টি, অন্যদিকে মেয়েদের সাথে জল কেলি করবে বলে ব্যস্ত হবার কথা ভেবেই আনন্দে ভাসছে রাহুল। অন্যদিকে নাজে হাল অবস্থা বনি – কুণালের। কী হতে চলেছে তিন জোড়া মধু চন্দ্রিমায়?

Related Articles