×
বিনোদন

ফের নতুন শর্ত খড়ির, ঋদ্ধিমান কি পারবে স্ত্রীকে বাড়ি ফেরাতে?

বিজ্ঞাপন

মনের কোণে জমা বরফ গলছে ধীরে ধীরে। খড়ির অভিমান একটু একটু করে কমছে। ঋদ্ধির প্রতি রাগ এখন তেমন আর নেই। অন্যদিকে ঋদ্ধিও একটু সহজ হয়েছে। নরম স্বরে বাড়িতে ফিরে আসতে বলছে খড়িকে। হাতটা ধরে এই ভাবে আসতে বললে কেই বা মানা করতে পারে। খড়িও রাজি হয় সিংহ রায় বাড়িতে ফিরতে। তবে বলে শর্ত আছে। কী সেই শর্ত?

বিজ্ঞাপন

ভট্টাচার্য দশকর্মা ভান্ডার ভেঙে যাওয়ার পরে একটা কাজের জন্য এদিক ওদিক ছুটে বেড়ায় খড়ি। তবে ঋদ্ধির জন্যে কোথাও কাজ পায় না সে। সিংহ রায় বাড়ির বড়ো নাতবৌকে চাকরি দেওয়ার সাহস কারোর নেই। খড়ির সামনে এলো সত্যিটা, ঋদ্ধির জন্যেই কেউ কাজ দিতে চাইছে না। খড়ি ঋদ্ধিকে জানায়, যত যাই করা হোক সাত দিনে রোজকার করে দেখাবেই খড়ি।

অন্যদিকে দেখাচ্ছে ঋদ্ধি রাহুলকে বলছে নিজেকে সিংহ রায় বাড়ির যোগ্য ছেলে প্রমাণ করতে। কারণ ঋদ্ধি চায় তিন ভাই মানে ঋদ্ধি, কুণাল, রাহুল মিলে পারিবারিক ব্যবসা সামলাবে। কিন্তু রাহুল রয়েছে নিজের প্ল্যান নিয়ে। খড়ির ক্ষতি করার পর এবার ঋদ্ধির ক্ষতি করার জন্য প্রস্তুতি ইচ্ছে সে। এক্সিবিশনের দিন বিরাট কিছুর প্ল্যান করছে রাহুল। এই বাড়ির না হয়েও রাহুলের ইচ্ছে সব কিছু নিজের নামে করিয়ে নেওয়ার ইচ্ছা। রাহুলের সাথে কথা বলে কুণালকে নিয়ে বেরিয়ে আসে।বাড়ি থেকে গাড়ি করে বেরোনোর সময় ঋদ্ধি ড্রাইভারকে গেট খুলতে বললে চমকে যায়। দেখে গেট নেই সেখানে দোকান। কুণাল বলে দাদা সামনে গেট কোথায়? এটা তো একটা দোকান। দুই ভাই ভালো করে দেখলে লক্ষ্য করে একটা দশকর্মা ভান্ডার রাতারাতি খোলা হয়েছে সিংহ রায় বাড়ির গেটের সামনে। তেমনটাই দেখা যাচ্ছে ভিডিওতে।

গাড়ি থেকে নেমে দেখে খড়ি আর বনি নিজেদের দোকান দিয়েছে। খড়ি জানায় সে নিজের কথা রেখেছে। ঋদ্ধির জন্যে কাজ পায়নি বলে বাধ্য হয়ে সিংহ রায় বাড়ির গেটের সামনে দশকর্মা ভান্ডার খুলতে হয়েছে তাকে। ঋদ্ধি রেগে গেলেও পরে নিজের ভুল বুঝতে পারে। তারপরে ভিডিওতে দেখা চার জন একটা রেস্টুরেন্টে বসে আছে। ঋদ্ধি আর খড়ি একটা টেবিলে একটু দূরের একটা টেবিলে কুণাল আর বনি। এমন কি ঋদ্ধি নিজের হাতে স্যান্ডউইচ খাইয়ে দিচ্ছে খড়িকে। এরপরে খড়ি দেরি হচ্ছে বলে বাড়ি যেতে চাইলে ঋদ্ধি তাকে বলে বাড়ি ফিরে আসতে। খড়ি রাজি হয় তবে বলে তার একটা শর্ত আছে। কী শর্ত তা জানার জন্যে উৎসুক দর্শক।

Related Articles