×
বিনোদন

ফের শোকের ছায়া বিনোদন জগতে! পরলোক গমন করলেন বর্ষীয়ান পরিচালক তরুণ মজুমদার

বিজ্ঞাপন

আর ভেন্টিলৈশন থেকে ফিরতে পারলেন না বর্ষীয়ান পরিচালক তরুণ মজুমদার (Tarun Majumdar)। গত ১৪ জুন তাঁকে ভর্তি করানো হয়েছিল উত্তর কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে। মৃত্যুর অনেক আগে থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থা শোচনীয় ছিল। কিডনি এবং হৃদ্‌যন্ত্রের সমস্যায় দীর্ঘ দিন ধরেই ভুগছিলেন প্রবীণ চলচ্চিত্র পরিচালক। সেই কারণেই হাসপাতালে চটজলদি ভর্তি করা হয় তাঁকে। গত কয়েকদিন ধরেই মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছিলেন তিনি। সেই কারণেই তাঁকে কয়েকদিন হাসপাতালে রাখা হয়।

বিজ্ঞাপন

এমনকী, উডবার্ন ওয়ার্ড থেকেও তাঁকে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। পরে সেখানে অবস্থার কিছুটা উন্নতিও হয়েছিল তাঁর। কিন্তু সম্প্রতি আবার অবনতি হতে থাকে শুরু করে তাঁর শারীরিক অবস্থার। কিছুদিন আগেই তাঁর শারীরিক উন্নতির জন্যে চিকিৎসকরা তাঁকে সাধারণ ওয়ার্ডে স্থানান্তর করার কথা ভেবেছিলেন। তবে কিন্তু সেটা আর হয়ে উঠল না। রবিবার তাঁকে ভেন্টিলেশনে দিতে হয়। সেখান থেকে আর তাঁকে ফেরাতে পারেননি চিকিৎসকরা। গতকাল অর্থাৎ সোমবার সকাল ১১টা ১৭ মিনিটে হাসপাতালেই মৃত্যু হয় প্রবীণ পরিচালকের।

বাংলা ইন্ডাস্ট্রি হারালো একজন নক্ষত্রকে। তাঁর মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গেই বাংলায় এক যুগের সমাপ্তি হল। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল 91 বছর। শোনা গিয়েছে, গত ২২ বছর ধরে তিনি কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন। ১৯৩১ সালের ৮ জানুয়ারি বাংলাদেশের বগুড়ায় জন্ম হয় তরুণ মজুমদারের। তাঁর বাবা বীরেন্দ্রনাথ মজুমদার ছিলেন একজন স্বাধীনতা সংগ্রামী। ১৯৫৯ সালে তরুণ মজুমদার প্রথম আসেন সিনেমার জগতে।

টানা ৬০ বছরেরও বেশি সময় ধরে কাজ করেছেন তিনি। বাংলা ও হিন্দি ইন্ডাস্ট্রিকে দিয়েছেন একাধিক ছবি উপহার। সাক্ষাত করিয়েছেন, আলাপ করিয়েছেন বাংলা ইন্ডাস্ট্রির একাধিক সুপারস্টারের সঙ্গে। শেষ ছবি বানিয়েছেন ২০১৮ সালে। ১৯৯০ সালে ‘পদ্মশ্রী’ সম্মান দেওয়া হয় তাঁকে।

Related Articles