×
বিনোদন

হিরো সেজে চোখে সানগ্লাস পরে স্ত্রী লক্ষ্মীর পাশে দেবুদা! রইল ভিডিও

বিজ্ঞাপন

দুলালের মধ্যে হিরো হিরো ভাবটা তার মানে তার বাবার কাছ থেকেই এসেছে। নানা এমন বলছি না সম্প্রতি ঘটা ঘটনা দেখেই আন্দাজ লাগাচ্ছি খালি আর কী! তবে প্রশ্ন হলো এমন কী হলো যে লক্ষ্মী কাকিমার বাড়ির সকলেই করছে অভিনয়? সবটা জানতে ইচ্ছে করলে ধরতে হবে ধৈর্য্য। আসুন আগে দেখে নিন ছোট্ট ভিডিও ক্লিপটি। তারপরে জানাচ্ছি পুরো বিষয়টা। আর যদি আরো জানার ইচ্ছে জেগে থাকে তবে চোখ রাখুন জি বাংলার পর্দায়।

বিজ্ঞাপন

প্রথম থেকেই সিরিয়ালে দেখনো হচ্ছে মধ্যবিত্ত পরিবারের বড় বউ আর ছেলে কেমন হয়। এছাড়াও তুলে ধরা হয়েছে মেয়েদের স্বাধীনভাবে রোজগার করার দিকটাও। সিরিয়াল নির্মাতারা লক্ষ্মী কাকিমাকে দিয়ে বাড়ির মায়েদের কথা তুলে ধরেছেন। সেই জন্যেই তো দিন দিন ‘লক্ষ্মী কাকিমা সুপাস্টার’ সিরিয়ালের দর্শক বেড়েই চলেছে। অন্যদিকে টিআরপি তালিকায় দেখা যাচ্ছে সফলতা।

সম্প্রতি সিরিয়ালে দেখনো হচ্ছে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়ে লক্ষ্মী কাকিমা বর এবং ছেলে – বউকে নিয়ে ভাড়া বাড়িতে উঠেছে। সংসারের কোন জিনিস নেই বলেই ‘দিদি নাম্বার ১’ গেছিলো লক্ষ্মী কাকিমা। তবে তাদের এমন অবস্থার পেছনে লক্ষ্মী কাকিমার বড়ো বৌমা, ছোট জা আর মেজো ঠাকুরপো বাদে আছে আরও একজন। সে আর অন্য কেউ নয় হংসিনীর বাবা। আর সেটার প্রমাণ হলো হংসিনীর কালো গাড়ি করে মেজো কাকার সাথে দেখা করতে আসা। সেই জন্যেই হংসিনী আর দুলাল মিলে গাড়িটা চুরি করেছে।

প্রোমোতে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে ড্রাইভার সেজেছে দুলাল। সে নিজের মুখ ঢাকতে একটু নামিয়ে টুপি আর চোখে পরেছে সানগ্লাস। অন্যদিকে কোট-প্যান্ট আর সানগ্লাস পরে হিরো সেজেছে দুলালের বাবা দেবু দা। এই বারেই বোঝা গেছে দুলালের হিরো হিরো ব্যাপারটা কার কাছ থেকে এসেছে। এই সব নাটক যে হংসিনীর বাবাকে ধরার সেটা বুঝতে আর কারোর বাকি নেই।

Related Articles