×
বিনোদন

বিয়ের ৮ বছর পরেও নেই শারীরিক সম্পর্ক! শেষমেশ ডিভোর্সের দাবি অনুভবের

বিজ্ঞাপন

ওড়িয়া ইন্ডাস্ট্রির একজন স্বনামধন্য অভিনেতা হলেন অনুভব মোহান্তি (Anubhav Mohanty)। অনেকদিন ধরেই ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে নাজেহাল নায়ক। বাংলাতেও এই নায়কের বেশ দাপট ছিল একসময়। কিন্তু এখন আর বাংলায় অভিনয় করেন না তিনি। তবে ওড়িয়া ইন্ডাস্ট্রির একজন সুপারস্টার তিনি। সেখানেও তাঁর বেশ পরিচিতি। তবে অভিনয় ছাড়াও তিনি একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। কিন্তু সাংসারিক জীবন তাঁর বড্ড জটিল। কয়েকদিন আগেও শোনা গিয়েছিল যে, তিনি ডিভোর্সের মামলার আবেদন করেছেন। তাঁর স্ত্রীও একজন ওড়িয়া ইন্ডাস্ট্রির টপ অভিনেত্রী, যার নাম বর্ষা প্রিয়দর্শনী (Varsha Priyadarshini)।

বিজ্ঞাপন

স্ত্রীর বিরুদ্ধে তাঁর অভিযোগ, ৮ বছরেও ছুঁতেও দেয়নি বউ তাঁকে, তাই ডিভোর্সের আবেদন সাংসদ-অভিনেতার। অন্যদিকে পাল্টা খোরপোষ দাবি অভিনেত্রী স্ত্রীর। মামলা এখনও আদালতে বিচারাধীন। এখন জোর চর্চায় রয়েছে, বিজেপি সাংসদ অভিনেতার ডিভোর্স মামলা। বর্ষার বিরুদ্ধে নায়কের অভিযোগ, বিয়ের ৮ বছর পরেও কাছে ঘেঁষতে দেয় না স্ত্রী, নেই শারীরিক কোনো সম্পর্ক। অন্যদিকে বর্ষা তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে পাল্টা গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ এনেছেন। রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে স্ত্রীর উপর অত্যাচার চালিয়েছে সে।

ইতিমধ্যেই অনুভবের কাছ থেকে ১৫ কোটি টাকা দাবি করেছেন বর্ষা। না এতেই শেষ নয়, প্রতি মাসে বাড়িভাড়া বাবদ ২০,০০০ টাকা এবং সংসার খরচ বাবদ ৫০,০০০ টাকার ডিম্যান্ড করেছেন বর্ষা প্রিয়দর্শিনী। ২০১৪ সালে ধুমধাম করে বিয়ে হয় তাঁদের। আর অনুভবের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই স্ত্রী তাঁকে কাছে ঘেঁষতে দেন না। এই নিয়ে ২০২০ সালে তিনি দিল্লির পারিবারিক আদালতে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা করেছিলেন। পরে এই মামালাকে কটকে স্থানান্তরিত করা হয়। এছাড়াও তাঁর ৩৭ বছর বয়সী অভিনেত্রী স্ত্রীর অভিযোগ, অনুভবের মদের নেশা রয়েছে।

সঙ্গে একাধিক নারীর সঙ্গেও সম্পর্কে রয়েছে তাঁর। এদিকে বর্ষার সাম্প্রতিক একটি ফেসবুক পোস্ট ব্যাপক ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়, যেখানে অভিনেত্রী লিখেছেন- ‘কোনও বিষই এক ইতিবাচক মানুষকে মারতে পারে না। আর কোনও ওষুধই নেতিবাচক ব্যক্তিকে বাঁচাতে পারে না।’ বাংলাতেও বর্ষা অভিনয় করেছেন, ‘জোর’ (Jor), ‘গোলামাল’ (Golmal), ‘লাভ স্টোরি’ (Love story), ‘হাসিখুশি ক্লাব’ (Hasikhushi Club)-এর মতো বাংলা ছবিতে। এবার তাঁদের সাংসারিক দ্বন্দ্ব কতদূর গড়ায় সেটিই দেখার বিষয়।

Related Articles